মালয়েশিয়া কি কি কাজ করা যায় | মালয়েশিয়া ভিসা কবে থেকে শুরু হবে

আমরা সকলেই জানি তিনি গত 3 বৎসর মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার বন্ধ ছিল। কিন্তু খুশির বিষয় হচ্ছে এখন আবার তিন বছর পরেই খুলতে যাচ্ছে মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার। কারা কারা কোন কোন শ্রমিক মালয়েশিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় অংশ গ্রহণ করতে পারবে? মারিসে ভিসা খুলবে কবে?মালয়েশিয়া ভিসা কবে খুলবে 2022? । মালয়েশিয়া কাজের বেতন কত? মূলত আজকের আর্টিকেলে এইসব বিষয় সম্পর্কে 

মালয়েশিয়া ভিসা কবে খুলবে 2023 | malaysia kobe khulbe

আজকের এই আর্টিকেলের মূল বিষয়বস্তু হচ্ছে মালয়েশিয়া ভিসা কবে খুলবে এ বিষয় নিয়ে। অনেক ব্যক্তি মালয়েশিয়া যাওয়ার জন্য এবং মালয়েশিয়ার ভিসা খোলার জন্য অপেক্ষা করে আছেন। অনেক দিন থেকে অপেক্ষা করেছেন মালয়েশিয়া সফর করার জন্য কিংবা কোন কর্ম সংস্থানের যোগ দেওয়ার জন্য। তাই এখন দীর্ঘ তিন বছর পরে অবশেষে বাংলাদেশের গরিব দুঃখী মানুষ কিংবা বিভিন্ন ধর্মের ইঞ্জিনিয়ারদের জন্য মালয়েশিয়ার ভিসা খোলা হচ্ছে। অর্থাৎ এটা থেকেই এটা প্রতীয়মান হয় যে বাংলাদেশ এবং মালয়েশিয়ার সমঝোতা চুক্তি সক্ষম হয়েছে। যার কারণে 21 শে ডিসেম্বর 2021 বাংলাদেশিদের জন্য মালয়েশিয়ার ভিসা খোলে গেল।

মালয়েশিয়া কি কি কাজ করা যায় | মালয়েশিয়া ভিসা কবে থেকে শুরু হবে

 

আরো পড়ুনঃ সাজেক ভ্যালি কোথায় অবস্থিত

আমরা সকলেই জানি বাংলাদেশ থেকে প্রায়ই অনেক লোক অবৈধভাবে সাগরপথে কিংবা অন্য যে কোন পদ্ধতি মালয়েশিয়ায় প্রমাণ করতে কিংবা কর্মী নিয়োগ হত। এই অবৈধ সিন্ডিকেটের কারণে বিগত প্রায় তিন বছরের অধিক মালয়েশিয়াতে বাংলাদেশিদের জন্য ভিসা বন্ধ ছিল। যেটা কিনা মূলত মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। অর্থাৎ তিনি মূলত বাংলাদেশ থেকে সম্পূর্ণরূপে লোক নেওয়া বন্ধ করে দেই।

যার কারণে যে সমস্ত অবৈধ বাঙালিরা সেই মালয়েশিয়াতে বসবাস করত যাদের কোন প্রকার ভিসা কিংবা অন্য কোন কার্ড কিংবা অনুমোদনের কাগজপত্র ছিল না। তাদেরকে সরকারকর্তৃক ধরে ধরে বাংলাদেশের মধ্যে পাঠিয়ে দিয়েছিল। তাই এখন সবার মনে একটা প্রশ্ন জাগতে পারে সেটা হচ্ছে যদি এটাই হয়ে থাকে তাহলে এখন আবার মালয়েশিয়া সরকার কি কারনে বাংলাদেশিদের জন্য ভিসা খুলে দিল?

See also  বাটন ফোনে উপায় একাউন্ট খোলার নিয়ম 2023

তার একটা মেইন কারণ হচ্ছে এখন এখন মালয়েশিয়ার মধ্যে দক্ষ ইঞ্জিনিয়ার এর অভাব যার কারণে তাদের অনেক ইঞ্জিনিয়ার এর প্রয়োজন। তাই তারা চায় বাংলাদেশ থেকে দক্ষ কারিগর এবং যারা ভালো কাজ জানে এবং ইঞ্জিনিয়ার ইত্যাদি নিয়োগ করবে। যার ফলে এখন বাংলাদেশ থেকে তারা আবার কর্মী নেওয়া কিংবা লোক নেওয়া শুরু করেছে। অর্থাৎ এখন যে বিষয়টি খুলে দিয়েছে সেটি হচ্ছে মালয়েশিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা। তাহলে এখন আমরা জানবো কি কি ক্ষেত্রে মালয়েশিয়া বাংলাদেশ থেকে লোক নিয়োগ করবে। তাই আজকের আর্টিকেলে আমরা মালয়েশিয়া ভিসা সম্পর্কে অনেক কিছু জানবো যেগুলো কিনা হয়তো আগে আপনি জানেন নি। তার মধ্যে একটা মেইন পয়েন্ট হচ্ছে মালয়েশিয়া ভিসা চেক করার নিয়ম। যেটা ও কিনা আমরা আপনাদের সাথে শেষের দিকে কিংবা আর্টিকেল এর যে কোন পার্টে বর্ণনা করবেন চেষ্টা করব।

আরো পড়ুনঃ কাঁচা ছোলা ও বাদাম খাওয়ার উপকারিতা।

মালয়েশিয়া ভিসার দাম কত | মালয়েশিয়া ভিসা ২০২২

বিশেষ করে যে সমস্ত লোকজন মালয়েশিয়াতে যেতে চান তাদের মনে সব সময় একটা প্রশ্ন জাগে সেটা হচ্ছে মালয়েশিয়া যেতে কত টাকা খরচ হবে। মালয়েশিয়া ভিসার দাম কতঃ মালয়েশিয়া যাওয়ার জন্য যে সমস্ত খরচ হয়েছে অর্থাৎ মালয়েশিয়াতে যাওয়ার এবং ভিসার খরচ সমস্ত কিছু বাংলাদেশ সরকার বহন করবে এই ভিসার জন্য।

তাই আপনি যদি মালয়েশিয়া যেতে চান তাহলে ভিসার খরচ থেকে শুরু করে এবং যাওয়ার খরচ পর্যন্ত আপনার খরচ হবে মাত্র 30 হাজার টাকা। ওয়েলস এবং টিএম এটির মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন করার সহ সিঙ্গার দেওয়া মেডিকেল ট্রেনিং ইত্যাদি সব কিছুর খরচ সরকারই বহন করবে অর্থাৎ মাত্র 30 হাজার টাকা দিয়ে। অবশ্যই আপনি চমকে গেছেন কেননা এত স্বল্প খরচে মালয়েশিয়া।

আবার অনেকের মনে একটা প্রশ্ন জাগতে পারে সেটা হচ্ছে আমরা তো জানি শুধুমাত্র মালয়েশিয়া যাওয়ার জন্য যে প্লেন ভাড়া রয়েছে সেটা 30000 টাকা তো আপনি কিভাবে বলছেন মালয়েশিয়া যাওয়ার জন্য ভিসা এবং যাওয়ার খরচ সবকিছু 30000 টাকার মধ্যে।

উত্তরঃ উপরে যে প্রশ্নটি আপনারা বলতেছেন সেটার উত্তর হচ্ছে আমি আপনাদেরকে আগে থেকে বলেছিলাম মালয়েশিয়াতে এখন প্রচুর পরিমাণে লোকের দরকার অর্থাৎ ইঞ্জিনিয়ারের যারা কিনা ভালো কাজ জানে। তাদের যেহেতু প্রচুর পরিমাণে লোকের প্রয়োজন তাই মানুষের সরকার তাদের নিজস্ব টাকা দিয়ে আপনাকে নিয়ে যাবে। কেননা gtg করে যখন কোন একটা দেশে লোক নেওয়া হয় তখন জনগণকে আবার সেই দেশে যাওয়ার জন্য ভিসার টাকার প্রয়োজন হয় না। তাদের নিজস্ব ভিসা আপনাকে গড়িয়ে দিয়ে এবং তাদের নিজস্ব টাকা দিয়ে আপনাকে তাদের দেশে নিয়ে যাবে।

See also  ইউটিউব ভিডিও দেখুন | বিজ্ঞাপন ছাড়া ইউটিউব ভিডিও দেখুন

আরো পড়ুনঃ জাতীয় পরিচয় পত্র অনুসন্ধান | জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড করার নিয়ম।

মালয়েশিয়া ভিসা কবে থেকে শুরু হবে

বাংলাদেশ এবং মালয়েশিয়ার মধ্যে সমঝোতা স্বাক্ষর হয়েছিল সেটি 2022 সালের ফেব্রুয়ারি মাসে অথবা মার্চ মাসে হয়েছিল আশাকরি। এখানে কিছু আমলাতান্ত্রিক বিষয় ছিল সেগুলো যখন সম্পূর্ণরূপে কমপ্লিট হয়ে যাবে তখন থেকে মালয়েশিয়াতে মানুষ যেতে পারবে। তবে আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করতে পারি আগামী কয়েক মাসের মধ্যে যখন সম্পূর্ণ কাজ কমপ্লিট হয়ে যাবে অর্থাৎ বাংলাদেশ মালয়েশিয়ার মধ্যে চুক্তি হয়েছে সেটি যখন কমপ্লিট হয়ে যাবে তখন মালয়েশিয়াতে সবাই যেতে পারবে।

তাই আমি আপনাদেরকে রিকমেন্ড করব আপনাদের মধ্যে যাদের এখনও পাসপোর্ট হয়নি তারা খুব দ্রুত পাসপোর্ট করে ফেলেন এবং আগে থেকে রেডি থাকুন। এর সবচেয়ে মেইন কারণ যেটা রয়েছে সেটি হচ্ছে এখন বর্তমান সরকার সবাইকে এলেক্ট্রিক বা ই পাসপোর্ট প্রদান করতেছে। তাই আপনারা যদি আমাদের এই ওয়েব সাইটে নিয়মিত চোখ রাখেন তাহলে সব গুলো আস্তে আস্তে জেনে যাবে। কেননা আমি আপনাদের সাথে মালয়েশিয়া ভিসা সম্পর্কিত যাবতীয় তথ্যের আপডেট দেওয়ার চেষ্টা করব এই ওয়েবসাইটে।

মালয়েশিয়া ভিসার মেয়াদ কয়দিন থাকবে

এখন বর্তমান মালয়েশিয়ার যে ওয়ার্ক পারমিট ভিসা করা হচ্ছে সেটার মেয়াদ প্রথমত দুই বছর থাকবে। তবে যখন দুই বছর শেষ হয়ে যাবে তখন আপনি চাইলে কম্পানি পরিবর্তন করে বা ভিসা এক্সচেঞ্জ করে সেখানে আরও দেখতে পারেন কিংবা কাজ করতে পারেন। তাই আপনি আগে থেকে যদি আরো থাকতে চান সেখানে সব গুলো ঠিকঠাক করে রাখুন যাতে পরবর্তীতে আবার একচেঞ্জ করতে পারেন।

আরো পড়ুনঃ রবি কাস্টমার কেয়ার নাম্বার ঢাকা | রবি কাস্টমার কেয়ার নাম্বার 2022

মালয়েশিয়া কারা যেতে পারবে | মালয়েশিয়া এই ভিসা কাদের জন্য প্রযোজ্য

আবার অনেকে প্রশ্ন করে থাকেন বর্তমানে যে বিষয়টি চালু হয়েছে মালয়েশিয়া যাবার জন্য সেই ভিসাতে কারা কারা যেতে পারবে। তো আমি তাদের প্রশ্নের উত্তরের জন্য বলতেছি আমাদের মধ্যে চাইলে প্রত্যেকটি ব্যক্তি এই ভিসাতে অংশগ্রহণ করতে পারবে অর্থাৎ মালয়েশিয়াতে যেতে পারবে।

See also  ঘরে বসে মোবাইলে আয় 2023

মালয়েশিয়া কি কি কাজ করা যায়

১/ কৃষি/ক্ষেত এর কাজ (মালয়েশিয়া কি কি কাজ করা যায়)

কমবেশি আমরা সকলেই জানি মালয়েশিয়াতে সবচেয়ে বেশি যে গাছে ফলন হয় তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে পাম গাছ। তাছাড়া আমরা সকলেই জানি পাম গাছ থেকে পাম অয়েল তৈরি করা হয়। যার কারণে মালয়েশিয়াতে প্রচুর পরিমাণে পামগাছ এক্সপার্ট বা পামওয়েল এক্সপোর্ট খুবই প্রয়োজন। যার কারণে এই কর্মের জন্য ভিসা পাওয়া অত্যন্ত সহজ একটি প্রক্রিয়া। তাই আপনি যদি মনের সাথে যেতে চান তাহলে এই কাজটি বেছে নিতে পারেন।

২/ নির্মাণ শ্রমিক (রাজমিস্ত্রি) (মালয়েশিয়া কি কি কাজ করা যায়)

দুই নম্বরে আমি আপনাদের সাথে যে কাজটি শেয়ার করবে সেটি হচ্ছে রাজমিস্ত্রির কাজ। মালয়েশিয়াতে প্রচুর পরিমাণে ইনফ্রাস্ট্রাকচার এর কাজের লোক প্রয়োজন। কেন মূলত তাদের এখানে প্রায় সবদিক থেকেই কাজের মানুষের বা কর্মীর অভাব। আপনি যদি একজন বালু রাজমিস্ত্রির কন্টাকটার বা মিস্ত্রি হয়ে থাকেন তাহলে আপনিও এই কাজটি বেছে নিতে পারবেন।

৩/ সেবামূলক কর্মের ক্ষেত্রে (১মালয়েশিয়া কি কি কাজ করা যায়)

এখানে সেবামূলক কাজ বলতে আমি আপনাদের কে বোঝানোর চেষ্টা করেছি যে বিভিন্ন প্রকার যে সেবা প্রতিষ্ঠান রয়েছে যেমন হোটেল, এবং বিভিন্ন রেস্টুরেন্ট যেগুলো রয়েছে সেখানে ভালো দক্ষ কারিগর প্রয়োজন। সে ক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই কাস্টমারের সাথে সুন্দর মসলিন ভাষায় কথা বললা জানতে হবে। যেন আপনার কারণেই সেই হোটেলের কাস্টমাররা তাদের চাওয়া মিটাতে পারে যার কারণে আপনি তাদের থেকে বকশিশও লাভ করতে পারেন।কেননা আমরা সকলেই জানি বিগত দুই বছর করোনা কালীন সময় যে সমস্ত হোটেল এবং রিসোর্টে লোকসান হয়েছে সেগুলো মিটানো তাদের অত্যন্ত প্রয়োজন। যার কারণে তাদের প্রচুর পরিমাণে কর্মচারীর প্রয়োজন যেন তারা কাস্টমারকে ভালো কিছু দিতে পারে। যার কারণে অবশ্যই তারা দক্ষ কারিগর বেশি নিবে তাই আপনি যদি একজন ভাল বাবুর্চি হয়ে থাকেন তাহলে আপনি যদি মালয়েশিয়াতে চান তাহলে আশা করা যায় ভাল প্রফিট করতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ সিঙ্গাপুর রাজধানীর নাম কি? সিঙ্গাপুর যেতে কত বয়স লাগে

উপরে আমি যে সমস্ত কর্মের অবস্থা সম্পর্কে আপনাদেরকে ধারণা দিয়েছি আশা করা যায় সেই কর্মসংস্থান গুলোতে 2022 সালে প্রচুর পরিমাণে কর্মী নিয়োগ দেবে। একটা ওয়েবসাইট থেকে জানতে পারলাম নাকি মালয়েশিয়াতে মানবসম্পদ মন্ত্রী যিনি রয়েছেন তিনি একটি আইন চালু করেছেন। যেখানে বলা হয়েছে 2022 সালে নাকি বাংলাদেশ থেকে উপরে দেওয়া প্রায় অনেক সেক্টরে বাংলাদেশ থেকে প্রচুর পরিমাণে কারিগর নিয়োগ দিবে। যেগুলো আশা করা যায় বিশেষ করে 2022 সালের শুরুর দিকে হতে পারে।

উপসংহারঃ আজকের মালয়েশিয়া ভিসা সম্পর্কিত যে আর্টিকেলটি লেখা হয়েছে সেটি যদি আপনাদের ভালো লাগে তাহলে অবশ্যই আপনার বন্ধু-বান্ধব কিংবা আত্মীয়স্বজনের কাছে শেয়ার করতে ভুলবেন না। কেননা হইতে আপনার একটা শেয়ার এর কারণে অনেক ব্যক্তি মালয়েশিয়া ভিসা/ Malaysia visa সম্পর্কিত অনেক বিষয় সম্পর্কে জেনে যাবে। আর্টিকেলটি পড়ার জন্য ধন্যবাদ।