কি কি সমস্যা থাকলে সেনাবাহিনীর চাকরি হয় না

আপনি কি জানতে চাচ্ছেন যে, কি কি সমস্যা থাকলে সেনাবাহিনীর চাকরি হয় না? তাহলে আজকের এই আর্টিকেলটা আপনার জন্যই লেখা হয়েছে। কেননা আজকের এই নিবন্ধতে আমি আপনাদের সাথে সেই বিষয়টা শেয়ার করার চেষ্টা করব ইনশাআল্লাহ।

বর্তমান সময়ে এমন লোক খুঁজে পাওয়া দুষ্কর যারা কেনার সরকারি চাকরি করতে চাই না। যদি সরকারি চাকরিটা যদি এমন হয় যেটা তিনি সেনাবাহিনীর চাকরি তাহলে তো প্রশ্নই আসে না।

কি কি সমস্যা থাকলে সেনাবাহিনীর চাকরি হয় না


বর্তমান সময়ে আপনি এমন লোক খুঁজে পাবেন যারা কিনা অনেকে আছেন সেনাবাহিনীতে চাকরি পাওয়ার জন্য অনেক আগ্রহী কিংবা চাকরি পেতে চায়। সুতরাং আপনি যদি একজন সেনাবাহিনীতে চাকরি করার জন্য আগ্রহী হয়ে থাকেন তাহলে তার আগে আপনাকে অনেক কিছু জানতে হবে এবং প্রস্তুত থাকতে হবে।

আপনাকে সেনাবাহিনীতে চাকরি দেওয়ার আগে আপনাকে কিছু টেস্ট করবে সেই টেস্টের মধ্যে যদি আপনি রেজাল্ট ভাল করতে পারেন তাহলে আপনি চাকরি পেয়ে যাবেন সেনাবাহিনীতে। এমন অনেক লোক আছে যারা কিনা সেনাবাহিনীতে চাকরি করার জন্য টেস্ট দেওয়ার পরে তাদের রেজাল্ট ভালো না আসার কারণে তাদের চাকরিটা আর হয় না।

ঠিক তারই ব্যক্তিকে আপনি যদি সেই বিষয়গুলো জানতে চান যে, আসলেই কোন কোন কারনে আমার সেনাবাহিনীতে চাকরিটা হবে না সেই বিষয়টা। সুতরাং আপনি যদি একজন সরকারি চাকরিজীবী হতে চান সেনাবাহিনীতে তাহলে নিচে দেওয়া জিনিসগুলো আপনার কাছে রয়েছে কিনা জেনে নিন।

আপনার কাছে কি এমন কোন সমস্যা রয়েছে যেটা আপনাকে আর্মি কিংবা সেনাবাহিনীতে চাকরি পাওয়া থেকে বাধা দেয়? যদি সেই সমস্যাগুলো আপনি খুঁজে পান আজকের এই নিবন্ধ থেকে। তাহলে খুব দ্রুত সেই সমস্যাটা সমাধান করতে পারেন কিনা দেখেন তাহলে আপনার চাকরিটা হবে না।

পাইলস ও হার্নিয়া, হাত ঘামা, পা বা ফ্ল্যাট ফিট, নাক কিংবা কানের সমস্যা, অতিরিক্ত তোতলা এবং ভার্জিন না হওয়া, অতিরিক্ত তোতলানো, অতিরিক্ত ধূমপান, টোটকাটা কিংবা কানকাটা, দাঁত, চোখ, চর্মরোগ, কাটা দাগ থাকা, পরিপূর্ণ উচ্চতা অনুযায়ী ওজন না হওয়া ইত্যাদি সমস্যার কারণে সেনাবাহিনীর চাকরি হয় না।

সেনাবাহিনী কি?

সেনাবাহিনী (আর্মি) কিংবা ঐ সমস্ত যুদ্ধা যারা কিনা মূলত ভূমির মধ্যেই যুদ্ধ করে। প্রত্যেকটি দেশের মধ্যে সেনাবাহিনী 'সামরিক বাহিনীর' একটি স্তল শাখা। প্রতিটি দেশের মধ্যে তাদের দেশ সুরক্ষা রাখার জন্য অনেকগুলো সামরিক বাহিনী নিয়োগ দিয়ে তাকে। এমন অনেক বাহিনী আছে যারা কিনা আকাশে যুদ্ধ করে কিংবা পানিতে যাদেরকে বিমানবাহিনী, নৌবাহিনী বলে থাকে। বিশেষ করে যারা প্রধানত ভূমিতেই যুদ্ধ করে তাদেরকে সেনাবাহিনী বলা হয়।

কি কি সমস্যা থাকলে সেনাবাহিনীর চাকরি হয় না

আমি আগেও বলেছিলাম এখনও বলছি আপনি যদি একজন সেনাবাহিনীতে কিংবা আর্মিতে চাকরির আবেদন করার জন্য বসে থাকেন কিংবা ইচ্ছে আছে তাহলে আপনার আগে থেকেই প্রস্তুত থাকা দরকার। অর্থাৎ সেনাবাহিনীতে যোগদান করার আগে আপনাকে রেডি থাকতে হবে বিভিন্ন শারীরিক বিষয় কিংবা অন্যান্য বিষয়ে

আপনার যদি সময় কোন অসুবিধে দেখা দেয় তাহলে আপনাকে আর্মিতে সুযোগ দেওয়া হবে না। তো কি কি অসুবিধার কারণে আমাদেরকে আর্মিতে যোগদান করার সুযোগ দিবে না সে বিষয়গুলো এখন আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করার চেষ্টা করব ইনশাআল্লাহ।

এখানে আমি প্রত্যেকটি বিষয়ে আলাদা ভাবে শেয়ার করার চেষ্টা করেছি তাই আর্টিকেলটি হইতে লম্বা হতে পারে সুতরাং যদিও সময় লাগে মনোযোগ দিয়ে পড়ার চেষ্টা করবেন। তাহলে চলুন আর কথা না বাড়িয়ে শুরু করা যাক

উচ্চতা এবং সে অনুযায়ী ওজনের পরিমাণ

সেনাবাহিনীতে যোগ দেওয়ার ক্ষেত্রে একটা বিষয় খুব লক্ষণীয় সেটা হচ্ছে আপনার যতটুকু লম্বা সাইজ হবে সে অনুযায়ী যেন আপনার ওজনও হয়। দেখা গেছে যে আপনার লম্বা ঠিক হয়ে আছে কিন্তু ওজন সে অনুযায়ী নয় তাহলে আপনি টিকতে পারবেন না।

বাংলাদেশের মধ্যে সেনাবাহিনীতে যোগ দেওয়ার ক্ষেত্রে আপনার উচ্চতা কমপক্ষে ৫ ফুট ৬ ইঞ্চি হতে হবে। সুতরাং দেখা গেছে যে আপনার উচ্চতা ঠিকই আছে কিন্তু সে অনুযায়ী আপনার ওজন নেই তাহলে আপনার চাকরিটা আর হবে না বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে।

তো আপনার যদি উচ্চতা ঠিকই দেখতে পান তাহলে আপনি কোন একটা ল্যাব এগিয়ে আপনার পর্যন্ত মেপে নিবেন ঠিক আছে কিনা। যদি দেখতে পান যে আপনার উচ্চতা এবং ওজন ঠিক আছে তাহলে আপনাকে পরবর্তী স্টেপ অর্থাৎ দ্বিতীয় কারণটাতে যেতে হবে,‌ সুতরাং সেটা ঠিক আছে কিনা দেখুন।

কাটা দাগ

আপনার সেনাবাহিনী কিংবা আর্মিটির চাকরি না হওয়ার অন্য আরেকটি কারণ হতে পারে কাটা দাগ। অর্থাৎ আপনি যদি দেখতে পান যে আপনার শরীরের কোথাও কোন কাটা দাগ রয়েছে অতিরিক্ত তাহলে বুঝবেন হয়তো আপনার মহামূল্যবান চাকরিটা আর হবে না।

আপনার মাথার মধ্যে যদি বড় কিংবা গভীর কোন দাগ থাকে তাহলে যে স্বাস্থ্য পরীক্ষাটা করা হয় সেখানে আপনাকে অযোগ্য বলে গণ্য করা হবে।

কারণ আপনার মাথার মধ্যে যদি এমন কোন বড় দাগ থাকে কিংবা গভীর ডাক্তারকে যার কারণে হয়তো আপনার মাথার ভিতরে কোন ক্ষতি হয়েছে এমন হতে পারে। যেগুলো কিনা তেমন সহজে নিরূপণ করা দুষ্কর। তবে আপনাকে সব সময় আল্লাহ তায়ালার কাছে সাহায্য প্রার্থনা করতে হবে এই সব সমস্যার সমাধানের ক্ষেত্রে।

তুমি ছাড়া আর একটা লক্ষনই বিষয় হচ্ছে আপনার মাথাটা টাক হওয়া, যদি টাক হয় তাহলে আপনি বাদ পড়ে যাবেন। আবার আপনার যদি অতিরিক্ত দাঁত থাকে তাহলে আপনি সে ক্ষেত্রে ও বাদ পড়ে যেতে পারেন। এই বিষয়টা যদিও বা প্রাথমিক পরীক্ষার ক্ষেত্রে তেমন গুরুত্ব দেওয়া হয় না কিন্তু যে ফাইনাল পরীক্ষাটা রয়েছে সেখানে অধিকতর গুরুত্ব দেওয়া হয়।

আমাদের মধ্যে এমন অনেক লোক দেখা যায় যাদের ত্বক কিংবা শরীরের মধ্যে ফাটা দাগ দেখা যায়। অনেকের মতে যখন কোন একজন মানুষের ওজন বেশি হয়ে যায় তখন এই সমস্যাটা দেখা দেয়। এই সমস্যাটাও মেডিকেল পরীক্ষার ক্ষেত্রে অনেক গুরুত্ব দিতে পারে। রবি পাঁচ টাকায় 20 মিনিট আপনার উপকারে আসবে যদি আপনি রবি সিম ব্যবহার করেন।

দাঁত এবং চোখে সমস্যা হওয়া

আপনার সেনাবাহিনীতে চাকরি না হওয়ার অন্যতম একটা কারণ হতে পারে আপনার দাঁত কিংবা চোখ। আপনাকে যখন মেডিকেল টেস্ট করা হবে তখন সবকিছু গভীরভাবে রিচার্জ করা হবে।

সুতরাং আপনার চোখে যদি কোন প্রকার সমস্যা থেকে অর্থাৎ আপনি চোখে কম দেখেন তাহলেও আপনি অযোগ্য বলে গণ্য হবেন ডাক্তার কর্তৃক যদি রিপোর্ট করে। তাছাড়া আপনার দাঁতে যদি কোন সমস্যা হয় কিংবা একেবারেই দাঁত না থাকে তাহলে সে ক্ষেত্রেও আপনি অযোগ্য বলে গণ্য হবেন।

তাই আপনি সর্বদা আল্লাহ তার কাছে প্রার্থনা করুন এইসব সমস্যার সমাধান পাওয়ার জন্য। তবে আপনি যতটা সম্ভব নিজেই চেষ্টা করবেন ডাক্তার দেখিয়ে হোক কিংবা অন্য কোন উপায়ে।

চর্মরোগ

আপনাকে যখন স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হবে নিয়োগ দেওয়ার সময় তখন শুরুতেই আপনার শরীরে কোন প্রকার ঘা, চুলকানি, ছুলি, শ্বেতিরোগ, কুষ্ঠ রোগ কিংবা অন্য যেকোনো অতিরিক্ত চর্মরোগ যদি চোখে পড়ে তাহলে সেটাও আপনার অযোগ্য হওয়ার কারণ হতে পারে।

অতিরিক্ত ধূমপান করা

আপনি যদি অতিরিক্ত ধূমপান করেন সেনাবাহিনীতে চাকরি পাওয়ার প্রয়োজন না হওয়ার অন্যতম একটি কারণ হতে পারে। এখন আপনার একটা হয়তো প্রশ্ন আসছে আমি যে ধূমপান করি সেটা তারা জানবে কি করে?

উত্তর হচ্ছে যারা কিনে ধূমপান করে না তাদের বুকের মাপ যদি হয় ৩০ তাহলে প্রসারিত অবস্থায় হবে ৩২। কিন্তু যারা প্রতিনিয়তই ধূমপান করে তাদের যে প্রিপারেশন টা বাড়তি পাচ্ছেন সেটা বাড়বে না। সামনের এসএসসি রেজাল্ট চেক সম্পর্কে জানতে পারবেন আপনিও।

পাইলস এবং হার্নিয়া

আপনার যদি এ সমস্ত রোগ থেকে থাকে তাহলে আপনার যতটা সম্ভব তাড়াতাড়ি সেরে ফেলা উচিত ডাক্তার দেখিয়ে হোক কিংবা অন্য কোন উপায়। কেননা স্বাস্থ্য পরীক্ষা কিংবা মেডিকেল টেস্ট এর মধ্যে বিশেষভাবে এগুলো উল্লেখ করা হয়।

ফাইনাল যে মেডিকেল টেস্টে করা হবে সেনাবাহিনীতে চাকরি দেয়ার ক্ষেত্রে সেখানে তো এই লোকগুলো থাকবে বাদ পড়ে যাবেনই। এমনকি যখন প্রাথমিক স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হবে তখনও আপনি বাদ পড়ে যেতে পারেন।

হাত ঘামা

আমাদের তো প্রায় প্রত্যেকেরই হাত ঘামে ঠিক আছে কিন্তু এমন অনেক লোক আছে যাদের কিনা অনেক বেশি হাত ঘামে। মূলত এটা কোন একটা রোগের কারণে হয়ে থাকে যার কারণে আপনি বাদ পড়ে যেতে পারেন।

এমনকি এমন অনেক লোক আছে যারা কিনা লিখিত পরীক্ষা দেওয়ার সময় নিজের হাতের ঘামের কারণে পরীক্ষার খাতাটাও ভিজে ফেলে। তাই আপনার যদি এরকম কোন অসুখ থেকে তাকে তাহলে সেরে ফেলার চেষ্টা করুন খুব দ্রুত।

পা বা ফ্ল্যাট ফিড সমস্যা হওয়া

আমাদের সমাজে এমন অনেক লোক আছে যারা কিনা দাঁড়ানোর সময় দেখা যায় ‌ দুই হাটু একসাথে মিশে যায়। সুতরাং আপনার দুই পায়ের গোড়ালি যদি এক জায়গায় করা হয় তখন যদি আপনার দুই হাটের মাঝখানে ফাঁকা না থাকে সে ক্ষেত্রেও আপনি বাদ পড়ে যেতে পারেন।

তাছাড়া আমাদের মধ্যে এমন অনেক লক্ষ দেখা যায় যারা কিনা অতিরিক্ত দৌড়াদৌড়ি করলে কিংবা দাঁড়িয়ে থাকলে তাদের হাটুর পিছনের যে রগগুলো রয়েছে সেগুলো ফুলে ওঠে। যার কারনে এমন অনেক লোক বেশিক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকতে পারে না কিংবা দৌড়াদৌড়ি করতে পারে না এটাই একটা বড় সমস্যা। সে ক্ষেত্রেও আপনার বাদ পড়ার সম্ভাবনা বেশি রয়েছে।

সাধারণত আমাদের সকলের পায়ের তালুর মধ্যে একটা হালকা কার্ভ অংশ থাকে। এমন অনেক লোক আছে যাদের কিনা এই কার্ভটা নেই যার কারণে তাদের দৌড়াতে সমস্যা হয় কিংবা অধিক দৌড়াতে পারে না।

এই সমস্যাটার জন্মগতভাবে হওয়ার কারণেই আশা করা যায় এখনো পর্যন্ত এর চিকিৎসা আবিষ্কার করা হয় নাই। বিশেষ করে এই সমস্যা থাকলে ডিফেন্ড ক্যান্ডিডেট কে বাদ দেওয়া হয়ে থাকে।

তবে যদিও বা আমার জানামতে এখনো পর্যন্ত কোনো প্রকার চিকিৎসা আবিষ্কার করা হয় নাই তবে আপনি প্রাকৃতিক একটা উপায় খুঁজে নিতে পারেন আর সেটা হচ্ছে ventilator shoes। আপনি ২-৩ মাস এই জুতাটা পরিধান করতে পারেন আশা করি আপনার এই সমস্যার জন্য ভালো হতে পারে। আপনি কি জানেনা আয়াতুল কুরসি পাঠ করলে কি উপকারিতা রয়েছে তাহলে জেনে নিন।

ভার্জিন না হওয়া

আপনি যদি কোন প্রকার যৌন রোগে আক্রান্ত হন সেক্ষেত্র ডিফেন্স স্বাস্থ্য পরীক্ষায় আপনি বাদ পড়ে যেতে পারেন। এমন অনেক লোক আছে যারা কিনা অবিবাহিত হওয়ার সত্যেও ভার্জিন হয় না। আপনি এসব সমস্যার কারণেও বাদ পড়ে যেতে পারেন।

এছাড়াও যদি আপনার গোপনাঙ্গে কোন বড় রোগ থেকে থাকে সে ক্ষেত্রে যেমন অণ্ডকোষ ছোট হওয়া কিংবা বড় হওয়া। তাছাড়া আপনি যদি দেখা গেছে যে, অতিরিক্ত হস্তমৈথুন করেন তাহলে সে ক্ষেত্রেও বাদ পড়ে যেতে পারেন।

উপসংহারঃ আজকের এই আর্টিকেলে আমি আপনাদের সাথে কি কি সমস্যা থাকলে সেনাবাহিনীর চাকরি হয় না এই রিলেটেড কিছু বলার চেষ্টা করেছি। তবে এখানে আমি যে সমস্যাগুলো তুলে ধরেছি সেগুলো বেসিক এগুলো ছাড়া আরো অনেক সমস্যা থাকতে পারে যেগুলো আপনারা জেনে নিবেন।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url