সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ম | সালাতুত তসবিহ নামাজের দোয়া ও ফজিলত

সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ম :- আজকের এই আর্টিকেলটি খুব গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে বিশেষ করে যারা মুসলিম ঈমানদার রয়েছে। কেননা আজকের এই আর্টিকেলে আমি একটা খুব গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে হাজির হয়েছি সেটা হচ্ছে সালাতুত তসবি নামাজ সম্পর্কে।

আমাদের মধ্যে অনেকে আছেন যারা কিনা নফল নামাজ পড়তে খুব পছন্দ করেন। তবে আমরা মুসলিম হিসেবে আমাদেরকে অবশ্যই ফরজ নামাজের পাশাপাশি নফল নামাজ পড়াও খুব গুরুত্বপূর্ণ। অনেকে আছেন যারা কিনা নফল নামাজ পড়তে পছন্দ করেন যেমন অনেকেই সালাতুত তসবিহ নামাজ পড়তে চান।



যার কারণে হয়তো অনেকেই google এর মধ্যে সালাতুত তসবিহ নামাজ সম্পর্কে অনেকেই সার্চ করে তাকে যেমন সালাতুত তাসবিহ নামাজের ফজিলত, সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ম ও নিয়ত, সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ম কানুন, সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ম ও দোয়া, সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ম কি, সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ম কারণ, সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ম ও পরিচয়, সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ম আহলে হক মিডিয়া।

আরো পড়ুনঃ সেরা ইসলামিক গজল | কলরব ইসলামী গজল

সুতরাং আপনাদের সার্চ করা বিষয় অনুযায়ী আজকের এই আর্টিকেলে আমি সম্পূর্ণরূপে সব কিছু তুলে ধরার চেষ্টা করব। তাই আশা করি আপনি যদি আজকের এই নিবন্ধটি খুব ভালোভাবে মনযোগ দিয়ে পড়েন তাহলে সালাতুত তসবি নামাজ সম্পর্কে আর অন্য কোথাও জানার জন্য যেতে হবে না আশা করি। তাহলে চলুন আর কথা না বাড়িয়ে শুরু করা।

সালাতুত তাসবিহ নামাজ কি?

আমরা অনেকেই সালাতুত তাসবীহ নামাজ সম্পর্কে শুনেছি কিন্তু আসলে নামাজটা কি এটা জানি না। সুতরাং এখন আমরা সালাতুত তসবি নামাজের পরিচয়টা জানব। মূলত সালাতুত তসবিহ এটা হচ্ছে একটি আরবি শব্দ যদিও আমরা বাংলা শব্দ মনে করে থাকি। সুতরাং এটার আরবি হচ্ছে صلاة تسبيح ‎এটা আবার তাসবিহের নামাজ নামেও অনেক ক্ষেত্রে পরিচিত।

কম বেশি আমরা সকলেই জানি সালাত (صلاة) শব্দের বাংলা অর্থ হচ্ছে নামাজ আর تسبيح এর বাংলা অর্থ হচ্ছে তাসবিহ। বলতে গেলে সালাতুত তাসবিহ বাক্যটি আরবি দুইটি শব্দ দিয়ে গঠিত। সালাতুত তাসবিহ (صلاة تسبيح ‎‎) এর বাংলা অর্থ দুইটা শব্দ থেকে একটা প্রতীয়মান হয়‌ যে তাসবিহের নামাজ।

এখানে তাসবিহ বলতে বুঝানো হয়েছে এই নামাজের মধ্যে নির্দিষ্ট একটা তাসবিহ পাঠ করতে হয় আর সেটা হচ্ছে, ‘সুবাহানাল্লাহ, ওয়াল হামদুলিল্লাহ, ওয়ালা ইলাহা ইল্লাল্লাহু, ওয়াল্লাহু আকবার’ । সুতরাং সাধারণত এই নামাজের মধ্যে যেহেতু তাসবিহ পাঠ করা হয় তাই এটাকে সালাতুত তসবিহ কিংবা তাসবিহের নামাজ বলে থাকে। ঈদের নামাজ কি? ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম ও নিয়ত। বিস্তারিত

সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ম

এরপর যে আমরা আজকের এই আর্টিকেলের মূল আলোচনার বিষয়টা জানবো অর্থাৎ আমরা যেহেতু এর আগে জেনে গেছি সালাতুত তাসবীহ নামাজ আসলে কি। তো এখন আমরা জানবো কিভাবে সালাতুত তসবি নামাজ আদায় করতে হয় কোন কোন প্রসেস অবলম্বন করার মাধ্যমে। তাহলে চলুন সেই বিষয়টা জেনে নেয়া যাক।

  • আপনি যদি সালাতুত তাসবিহ নামাজ পড়ার জন্য আপনাকে সর্বপ্রথম চার রাকাতের নিয়ত বাঁধতে হবে।
  • তারপর অন্যান্য নামাজের মত ছানা, আউজুবিল্লাহ, বিসমিল্লাহ এবং কেরাত ইত্যাদি পড়ার পরে রুকুতে যাওয়ার আগে ১৫ বার سُبْحَانَ اللہِ وَالْحَمْدُ لِلَّہِ وَلَا إِلَہَ إِلَّا اللہُ وَاللہُ أَکْبَرُ পড়তে হবে এবং তারপর রুকুতে যেতে হবে।
  • রুকুতে যাওয়ার পরে তিনবার سبحان ربی العظیم পড়তে হবে এবং তারপর উপরে উল্লেখিত তাসবিহ আবারও পড়বে ১০ বার অর্থাৎ রুকু থেকে ওঠার আগে দশবার।
  • এখন আপনাকে রুকু থেকে উঠতে হবে অর্থাৎ ‌سمع اللہ حمدہ এবং ربنا لک الحمد পড়ার পরে সিজদাতে যাওয়ার আগে ১০ আবারো উপরে উল্লেখিত তাসবিহ পড়তে হবে।
  • সিজদাতে যাওয়ার পরে সিজদার মধ্যে ৩ বার سبحان ربی الاعلی পড়ার পরে আবারো উপরে উল্লেখিত তাসবিহটি ১০ বার পড়তে হবে।
  • এখন আপনাকে সিজদা থেকে উঠে আবারো উপরে উল্লেখিত তাসবিহ ১০ বার পড়তে হবে। এখন আপনাকে আবারো দ্বিতীয় সিজদাতে গিয়ে প্রথম সিজদার মত ১০ বার উপরে উল্লেখিত তাসবিহ পড়তে হবে।
  • দ্বিতীয় সিজদা শেষ করে আল্লাহু আকবার বলে দাঁড়িয়ে যাবেন না বরং বসবেন এবং উপরে উল্লেখিত তাসবিহটি আবারও ১০ বার পড়বেন সুতরাং তাসবিহটি পড়ার পরে আল্লাহু আকবার বলা ছাড়া দাঁড়িয়ে যাবেন। সুতরাং এভাবে আপনার তাসবিহটা ৭৫ বার পড়া শেষ হয়ে যাবে।
  • সুতরাং আপনি এই ভাবেই ওপরে উল্লেখিত নিয়ম অনুযায়ী চার রাকাত শেষ করে ফেলবেন। চার রাকাত শেষ করে যখন একদম শেষের রাকাতের পরে আত্তাহিয়্যাতে জন্য বসবেন তখন আত্তাহিয়্যাত না পড়ে আগে দশবার উপরে উল্লেখিত তাসবিহ ( سُبْحَانَ اللہِ وَالْحَمْدُ لِلَّہِ وَلَا إِلَہَ إِلَّا اللہُ وَاللہُ أَکْبَرُ ) ১০ বার পড়বে। তারপর আত্তাহিয়্যাত ইত্যাদি পড়ে সালাম ফিরিয়ে নামাজ শেষ করবেন।

তবে এই নিয়মটি ছাড়া আর একটা নিয়ম রয়েছে যেটা কিনা আপনাদের জন্য আশা করি খুব একটা কঠিন হতে পারে। তাই সেই নিয়মটা এখানে তুলে ধরলাম না আপনারা উপরে উল্লেখিত নিয়ম অনুযায়ী সালাতুত তাসবিহ নামাজ আদায় করতে পারবেন। তাহাজ্জুদ নামাজ সুন্নত নাকি নফল | তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম ও নিয়ত

মহিলাদের সালাতুল তাসবিহ নামাজের নিয়ম

আমাদের মধ্যে অনেক মা বোন আছে যারা কিনা সালাতুত তাসবিহ নামাজ পড়তে চাই। তাদের মধ্যে আবার অনেকেই মনে করে থাকেন হয়তো মহিলাদের সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ম অন্যরকম। আসলে মূলত আপনি সাধারণত যেভাবে নামাজটা পড়েন ঠিক সেভাবেই পড়বেন এখানে শুধুমাত্র যে তাসবিহটা রয়েছে সেটা পার্থক্য রয়েছে।

সুতরাং আপনি মহিলা হন কিংবা পুরুষ আপনি সাধারণ নামাজের মতই চার রাকাত নামাজ পড়বেন। চার রাকাত নামাজ পড়ার মধ্যে শুধুমাত্র পার্থক্য অতটুকুই যে তাসবিহটা পড়া। সুতরাং আপনি সালাতুল তাসবিহ নামাজের নিয়ত করার পরে উপরে উল্লেখিত নিয়ম অনুযায়ী নামাজ শেষ করবেন।

তবে এখানে মহিলাদের নামাজের মধ্যে পার্থক্য বলতে, যে পার্থক্যটা রয়েছে সাধারণ নামাজের মধ্যে সেটা। অর্থাৎ আমরা যে সাধারণ নামাজ পড়ি সেখানে মহিলাদের নামাজ পড়ার নিয়ম অন্যরকম আর পুরুষের নামাজ পড়ার নিয়ম অন্যরকম। ঠিক সেই ভাবে নামাজ পড়বেন এবং শুধুমাত্র উভয়ে (পুরুষ মহিলা) একইভাবে তাসবীহ পাঠ করবেন সালাতুত তাসবিহ নামাজের মধ্যে।

সালাতুত তাসবিহ নামাজের ফজিলত

সালাতুত তাসবিহ নামাজের অনেক ফজিলত রয়েছে। সালাতুত তাসবিহ সম্পর্কে যে হাদিসটা রয়েছে সেখান থেকে অনেক সাওয়াব মানকূল আছে। হযরত মুহাম্মদ সাঃ নিজেই চাচা হযরত আব্বাস রাঃ কে এই নামাজের শিক্ষা দিয়েছেন এবং বলেছেন এই নামাজটা পড়ার কারণে আপনার সমস্ত গুনাহ আগের-পিছের, নতুন-পুরাতন, ছোট-বড়, ভুলে করা হয়েছে কিংবা জেনে বুঝে, চুপে চুপে করেছেন কিংবা প্রকাশ্যে সমস্ত গুনাহ আল্লাহ তায়ালা মাফ করে দিবেন। এবং আরো বলেছেন যদি সম্ভব হয় তাহলে এই নামাজ প্রতিদিন পড়ো, যদি সম্ভব না হয় তাহলে সপ্তাহে একবার পড়ো, যদি সম্ভব না হয় তাহলে মাসে একবার পড়ো,‌ যদি এটাও সম্ভব না হয় তাহলে বছরে একবার পড়ো, এবং যদি এটাও সম্ভব না হয় তাহলে জিন্দেগির মধ্যে অবশ্যই একবার হলেও পড়ো ( او کما قال علیہ السلام)

যদি কোন মুসিবতকে লক্ষ্য করে কিংবা কোন হাজত পূর্ণ হওয়ার দিকে লক্ষ্য করে এই নামাজ পড়া হয়, তাহলে আশা করা যায় এই নামাজের কারণে আল্লাহ তায়ালা আপনার মসিবত দূর করে দিবেন এবং আপনার মনের আশা পূরণ করে দিবেন।

সালাতুত তাসবিহ নামাজ কখন পড়তে হয়

আমাদের মধ্যে অনেকে আছেন যে জানতে চান সালাতুত তাসবিহ নামাজ কখন পড়তে হয়। আসলে মূলত সালাতুত তসবি নামাজ পড়ার জন্য নির্দিষ্ট কোন সময় নেই। তাই আপনি নামাজের যে মাকরূহ সময়টা রয়েছে সেটা ব্যতীত দিন-রাত ২৪ ঘণ্টার মধ্যে যেকোনো সময় পড়তে পারবেন।

এক্ষেত্রে আপনি চাইলে প্রতিদিন পড়তে পারেন, আবার চাইলে সপ্তাহে একবার পড়তে পারেন, আবার চাইলে আপনি মাসে একবার পড়তে পারেন, যদি সম্ভব না হয় তাহলে বছরে একবার পড়তে পারেন এবং যদি তাও সম্ভব না হয় তাহলে আপনার জীবনের মধ্যে একবার হলেও পড়তে পারেন।

আপনার যদি কোন হাজতের প্রয়োজন পড়ে তখন এই নামাজের উসিলা করে আল্লাহর কাছ থেকে সাহায্য চাইতে পারেন। ইনশাআল্লাহ আল্লাহ তায়ালা আপনার আশা এবং চাওয়া পূরণ করবেন।

সালাতুল তাসবিহ নামাজের নিয়ম ও ফজিলত

আপনি যদি চালাইতে আসবি নামাজের নিয়ম এবং সাথে এর ফজিলত জানতে চান তাহলে অবশ্যই আজকের আর্টিকেলটি থেকে আপনি জানতে পারবেন। তবে আমি এর আগে আর্টিকেলের উপরের দিকে সালাতুত তসবিহ নামাজের নিয়ম এবং ফজিলত তুলে ধরেছি। সুতরাং আপনারা চাইলে সেখান থেকে দেখে আসতে পারেন তাই আর্টিকেল লম্বা না হওয়ার ক্ষেত্রে এখানে আর তুলে ধরছি না যেহেতু উপরে তুলে ধরেছি।দোয়া কুনুত এর ফজিলত | দোয়া কুনুত ডাউনলোড pdf

সালাতুত তাসবিহ নামাজ কত রাকাত

সালাতুত তাসবিহ নামাজ ৪ রাকাত সুতরাং আপনি সালাতুত তাসবিহ নামাজের জন্য চার রাকাতের নিয়ত করে, উপরে উল্লেখিত নিয়ম অনুযায়ী নামাজ শেষ করবেন। এই নামাজের অনেক ফজিলত বিদ্যমান রয়েছে যেগুলো কিনা হাদিস পড়লে আপনি জেনে যাবেন। তো আমি আপনাকে রিকমেন্ট করব আপনি যেন এই নামাজ সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানার জন্য বিভিন্ন যে বড় বড় হাদিসের কিতাব রয়েছে সেগুলো পড়ে দেখেন।

সালাতুত তাসবিহ নামাজ সুন্নত না নফল

সালাতুত তসবিহ নামাজটি যে হাদিস দ্বারা প্রমাণিত হয়েছে সেই হাদিসটা বিশুদ্ধভাবে প্রমাণিত নয়। তাই এমন অনেক ওলামায়ে কেরাম আছে যারা কিনা এই নামাজ পড়া থেকে বিরত থাকেন এবং অনেক ওলামায়ে কেরাম আছেন যারা কিনা এই নামাজকে মুস্তাহাব বলে থাকে। আরো বিস্তারিত ভাবে জানার জন্য বিভিন্ন গ্রহণযোগ্য ওলামায়ে কেরামের কাছে জিজ্ঞেস করতে পারেন। কোরবানির ঈদ কবে 2022 | ঈদুল আযহা ২০২২ কত তারিখে

সালাতুত তাসবিহ নামাজের দোয়া

আমাদের মধ্যে আবার অনেকে জিজ্ঞেস করে থাকেন সালাতুত তাসবিহ নামাজের দোয়া কি। আসলে হয়তো এখানে সালাতুত তসবিহ নামাজের দোয়া বলতে অনেকেই যে, এই নামাজের মধ্যে তাসবিহ পড়া হয় সেটা বোঝাতে চাইছে। সুতরাং সেই অনুযায়ী সালাতুত তাসবিহ নামাজের দোয়া হচ্ছে سُبْحَانَ اللہِ وَالْحَمْدُ لِلَّہِ وَلَا إِلَہَ إِلَّا اللہُ وَاللہُ أَکْبَرُ

উপসংহারঃ আজকের আর্টিকেলে মূল বিষয়বস্তু হচ্ছে সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ম এবং এই রিলেটেড আরো কয়েকটা বিষয় সম্পর্কে। আশা করি আজকের আর্টিকেল থেকে আপনারা অনেক উপকৃত হয়েছে।

আরো পড়ুনঃ নিউ ইসলামিক গজল | কলরবের নতুন ইসলামী গজল | ৫ টি কলরবের নতুন গজল

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url