সিম কার নামে রেজিস্ট্রেশন করা কিভাবে জানবো | সিম রেজিস্ট্রেশন বাতিল করার নিয়ম

 

সিম কার নামে রেজিস্ট্রেশন করা কিভাবে জানবো
সিম কার নামে রেজিস্ট্রেশন করা কিভাবে জানবো | সিম রেজিস্ট্রেশন বাতিল করার নিয়ম

সিম কার নামে রেজিস্ট্রেশন করা কিভাবে জানবো:-এ বিষয়টি বর্তমান সময়ে একটি জনপ্রিয় গুগলের সার্চ করা বিষয়। তাছাড়া এই বিষয়টা সম্পর্কে জানা প্রত্যেকের অত্যন্ত জরুরি। তাছাড়া আপনি যদি আপনার সিমটা নিজের রেজিস্ট্রেশন করেন তাহলে অবশ্যই জানবেন ১০০% সিউর এই সিমটা কার নামে কিংবা কার এনআইডি কার্ডে রেজিস্ট্রেশন করা হয়েছে।

তবে আমাদের সমাজের সচরাচর একটা বেশি দেখা যায় অনেক ছোটকাল থেকেই অনেক ব্যক্তি মোবাইল ব্যবহার করে। অর্থাৎ বর্তমান সময়ে এনআইডি কার্ড হওয়ার আগেই অনেক লোকজন আছে তারা সিম ক্রয় করে অন্যজনের এনআইডি কার্ড দিয়ে।

যেমন আমিও আমার বন্ধুবান্ধবদের দিয়ে অনেক সিম রেজিস্ট্রেশন করিয়েছি এবং আমি এ পর্যন্ত ব্যবহার করতেছি। তাই এখনো পর্যন্ত আমার আইডি কার্ড না হওয়ার কারণে আমি এখনো নিজের আইডি কার্ড দিয়ে সিম রেজিস্ট্রেশন করতে পারিনি।

তাই এখন আমার কাছে যেহেতু অন্যান্য লোকদের এনআইডি কার্ড দিয়ে সিম রেজিস্ট্রেশন করা হয়েছে তাই আমার একটু হলেও জানা দরকার আসলে এই সিমগুলো কার কার আইডি কার্ড দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করা।

আরো পড়ুনঃ

আসলে বিশেষ করে সিমটা কার নামে রেজিস্ট্রেশন করা এটা দেখার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কারণটা হলো আমরা এখন অনেকেই বাংলাদেশের মধ্যে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা ব্যবহার করে থাকে।

মোবাইল ব্যাংকিং আসলে এমন একটি সহজ প্রক্রিয়া যেগুলো কিনা আপনি বাংলাদেশের প্রায় প্রত্যেকটি অপারেটরের সিম দিয়ে তাদের এই অ্যাকাউন্ট করতে পারবেন। যার কারণে বিশেষ করে আমাদেরকে আমাদের দৈনিন্দন ব্যবহৃত সিমটা কার নামে রেজিস্ট্রেশন করা আছে এটা জানতে হয়।

যেমন আপনি আপনার কাছে থাকা একটি সিমের মধ্যে মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্ট ক্রিয়েট করেছেন। এবং সেখানে আপনি প্রতিনিয়ত বহুল লেনদেন সম্পন্ন করেন অনেক টাকা পয়সা আছে আপনার একাউন্টে।

এবং আপনি যদি আপনার যে সিমে মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্ট রয়েছে সে সিমের রেজিস্ট্রেশন কার নামে করেছেন এটা না জানেন তাহলে আপনি পরে একটা অনেক বড় বিপদে পড়তে পারেন।

যেমন আপনি যদি কোন একজন খারাপ লোকের এন আইডি কার্ড দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করেন আপনার সিমটা এবং সে যদি জানতে পারে আপনার সিমের মধ্যে আপনি মোবাইল ব্যাংকিং অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করেন তাহলে উনি চাইলেই সিমটা আবার রিপ্লেসমেন্ট করে নিজের নামে করে ফেলতে পারবে।

তাহলে হয়তো আপনার একটা ভুলের কারণেই আপনার একাউন্টে থাকা সমস্ত টাকা চলে যেতে পারে মুহূর্তের মধ্যেই। তাই আমাদেরকে অবশ্যই সচেতন থাকা দরকার এবং সিম কার নামে রেজিস্ট্রেশন করা কিভাবে জানবো এই বিষয়টা আর্টিকেল থেকে জেনে নেওয়া দরকার।

আমাদের ব্যবহৃত সিমটি কার নামে রেজিস্ট্রেশন এটা জানার পাশাপাশি আমাদেরকে আরেকটা বিষয় জানা দরকার সেটা হচ্ছে আমার নামে আসলে কয়টা সিম রেজিস্ট্রেশন করা রয়েছে। যেটাকে আমরা সিম রেজিস্ট্রেশন চেক বলে থাকি।

কেননা বাংলাদেশের বিটিআরসির নিয়ম অনুযায়ী বর্তমান সময়ে প্রতিটি ব্যক্তি নিজের নামে কিংবা নিজের এন আইডি কার্ড দিয়ে মাত্র 15 টি সিম রেজিস্ট্রেশন করতে পারবে। তাই আপনি যদি এখন আপনার নামের রেজিস্ট্রেশন করা কয়টি সিম রয়েছে অ্যাড না জানেন তাহলে কি সমস্যায় পড়তে পারেন আপনিই বলেন?

তাই আজকের এই আর্টিকেলে সিম কার নামে রেজিস্ট্রেশন করা কিভাবে জানবো এই প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার পাশাপাশি আপনার নামে সিম কয়টা রেজিস্ট্রেশন করা হয়েছে সেটা জানবো। তাই আর কথা না বাড়িয়ে শুরু করা যাক এই বিষয় সম্পর্কে বিস্তারিত।

আরো পড়ুনঃ

সিম কার নামে রেজিস্ট্রেশন করা কিভাবে জানবো কি?

মূলত এটি হচ্ছে এমন একটি প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে আপনি আপনার কাছে থাকা সিমের মালিকানা খুঁজে পাবেন। অর্থাৎ আজকে দেওয়া উপায় গুলি যদি আপনি ফলো করেন তাহলে আপনার কাছে টাকা যে সিমটি রয়েছে সেটা কার নামে রেজিস্ট্রেশন কিংবা কার এনআইডি কার্ড দিয়ে তোলা হয়েছে এটা জানতে পারবেন।

সিম কার নামে রেজিস্ট্রেশন করা কিভাবে জানবো পদ্ধতি কয়টি?

মূল আলোচনায় যাওয়ার আগে আমাদেরকে প্রাথমিক কিছু জেনে নেওয়া দরকার তার মধ্যে একটি হচ্ছে আসলে মূলত কয়টি পদ্ধতি ব্যবহার করে সিম কার নামে রেজিস্ট্রেশন করা এটা দেখা যায়। আপনাদের সুবিধার্থে নিয়েছে আমি এই বিষয়টা দিয়ে দিয়েছি।

সাধারণত বর্তমান বাংলাদেশের মধ্যে দুটি চলমান পদ্ধতিতে আপনার ব্যবহৃত সিমটি কার নামে রেজিস্ট্রেশন চেক করতে পারবেন কিংবা দেখতে পারবেন। আপনাদের সুবিধার্থে নিচে আমি এই বিষয়টা শেয়ার করেছি

  • ইউএসএসডি কোড ডায়াল করার মাধ্যমে
  • আপনার সিম কোম্পানির কোন একটা এজেন্ট পয়েন্টে গিয়ে

আসলে মূলত এই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আপনার কাছে থাকা চিমটি কার নামে রেজিস্ট্রেশন করা এটা বিস্তারিত ভাবে জানতে পারবেন না। তবে হ্যাঁ আপনি অতটুকু জানতে পারবেন আপনার কাছে থাকা কিংবা আপনার আশেপাশে থাকা কোন একজন এর এনআইডি কার্ড দিয়ে আপনি চেক করতে পারবেন এই নাম্বারটা উনার আইডি কার্ড দিয়ে করা কিনা।

অর্থাৎ আপনার জন্যই কারো সন্দেহ হয় যে, আপনার কাছে বর্তমান যে সিমটি রয়েছে সেটা হয়তো উনার নামে কিংবা উনার এন আইডি কার্ড দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করা। সে ক্ষেত্রে আপনি এই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ইউএসএসটি কোড ডায়াল করে উনার আইডি কার্ড দিয়ে চেক করতে পারবেন আসলেই উনার আইডি কার্ড দিয়ে আপনার সিমটা রেজিস্ট্রেশন করা কিনা।

কেননা একটি নির্দিষ্ট ইউএসএসডি কোড ডায়াল করার পরে আপনার যে এন আইডি কার্ড টা সন্দেহ হচ্ছে সে এনআইডি কার্ডের শেষের ৬ কিংবা চারটি সংখ্যা প্রদান করার ফলে আপনাকে ফিরতি এসএমএস এর মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হবে আপনার নামে কয়টা সিম রেজিস্ট্রেশন করা হয়েছে।

সুতরাং আপনি যদি এই প্রক্রিয়াটি জানতে চান এবং আপনার সিমটি কার নামে রেজিস্ট্রেশন কিংবা কার আইডি কার্ড দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করা হয়েছে এতে জানার জন্য নিচের স্টেপস গুলো ফলো করুন।

  • সিম কার নামে রেজিস্ট্রেশন জানার জন্য সর্বপ্রথম আপনার যে ফোনটি রয়েছে সে ফোনের ডায়াল ফেটে চলে যান।
  • তারপর ডায়াল ফেটে গিয়ে ডায়াল করুন *১৬০০১# 
  • তারপর আপনার যে এনআইডি কার্ডটা সন্দেহ হচ্ছে সেটা আপনার হাতে নিন।
  • এখন আপনি আপনার এনআইডি কার্ডের সর্বশেষ চারটি ডিজিট টাইপ করুন।
  • চার ডিজিট টা দেওয়ার ফর ইন্টার করলেই আপনাকে ফিরতি এসএমএস এর মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হবে।
  • এখন যদি আপনার দেওয়া এনআইডি কার্ডটা সেই সিম দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করা হয়ে থাকে তাহলে আপনি এসএমএসে দেখতে পাবেন কয়টা সিম সেই এনআইডি কার্ড দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করা রয়েছে।

আসলে মূলত আমি উপরে দেওয়া এই প্রক্রিয়াটি আপনাদের সাথে শেয়ার করতে চাচ্ছিলাম এই প্রক্রিয়াটিভ ব্যবহার করার মাধ্যমে আপনারা খুব সহজেই আপনাদের কাঙ্খিত প্রশ্নের উত্তরটি পেয়ে যাবেন।

তবে নির্দিষ্ট ভাবে জানার জন্য আসলে মূলত এই সিমটি কার নামে রেজিস্ট্রেশন করা হয়েছে সেক্ষেত্রে আপনাকে সর্বপ্রথম জানতে হবে আপনার কাছে যে সিমটা রয়েছে সে সিমটি আপনার কাছে থাকা এনআইডি কার্ড দিয়ে করা কিনা। তাহলে আপনি নিশ্চিত হয়ে যাবেন সে এন আইডি কার্ড দিয়ে কয়টা সিম রেজিস্ট্রেশন করা রয়েছে।

তা না হলে আপনাকে সরাসরি তাদের কাস্টমার কেয়ার অফিসে যোগাযোগ করে জেনে নিতে হবে এই সিমটি কার নামে রেজিস্ট্রেশন করা রয়েছে। তবে আপনি যদি সেখানে গিয়ে আপনার সমস্ত তথ্য প্রোভাইড করেন তাহলে তারা আপনাকে সবগুলোই বলে দিবে সঠিক ইনফরমেশন।

তবে আপনি যদি উপরে দেওয়া প্রক্রিয়াগুলো খুব ভালোভাবে ফলো করে সে অনুযায়ী কাজ করেন এবং আপনার দেওয়া এনআইডি কার্ডের তথ্য ঠিক হয় তাহলে আমাদের বাংলাদেশে থাকা grameenphone, রবি, airtel, টেলিটক এবং বাংলালিংক ‌ কোম্পানি থেকে আপনি কয়টা সিম সংগ্রহ করেছেন এই আইডি কার্ড দিয়ে।

ফিরতি এসএমএস এর মাধ্যমে আপনাকে যেই বিষয়টা তুলে ধরা হবে সেটা হচ্ছে, আপনার সিম যেগুলো রেজিস্ট্রেশন করা রয়েছে সেগুলোর অপারেটর কি এবং প্রত্যেক নাম্বারের শেষ চারটি সংখ্যা।

আপনি যে সিম থেকে ডায়াল করবেন সেটা আপনার কাঙ্ক্ষিত এন আইডি কার্ড দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করা আছে কিনা সেটা আপনি এসএমএস এর মাধ্যমেই দেখতে পাবেন। যদি রেজিস্ট্রেশন করা থাকে তাহলে এসএমএসে আপনার সেই সিমের সর্বশেষ চার ডিজিট দেখতে পাবেন।

বিঃদ্রঃ তবে একটা কথা আপনাদেরকে আগে থেকেই বলে রাখা ভালো আপনি এই পদ্ধতির মাধ্যমে বিস্তারিত ভাবে জানতে পারবেন না আপনার আইডি কার্ড দিয়ে যে নাম্বারগুলো রেজিস্ট্রেশন করা হয়েছে সেগুলো কি কি। তবে আপনি নাম্বারগুলোর শেষ ৩ ডিজিট দেখতে পাবেন।

আরো পড়ুনঃ

সিম নাম্বার দিয়ে পরিচয় | সিম কার নামে নিবন্ধন 

আমাদের মধ্যে অনেকেই জানার চেষ্টা করে থাকেন যে আপনার কাছে থাকা যে সিম নাম্বারটি রয়েছে সেটা দিয়ে তার পরিচয় বের করবেন। যার কারণে অনেকেই google এ গিয়ে এটা লিখে সার্চ করেন।

দুর্ভাগ্যবশত আপনি কোন ব্যক্তির শুধুমাত্র তার নাম্বার দিয়ে সেই নাম্বারের আইডি কার্ড কোনটা সেটা বের করতে পারবেন না। আসল কথা হলো আপনি শুধুমাত্র নাম্বার দিয়ে তার সমস্ত পরিচয় এবং ডিটেলস বের করতে পারবেন না।

তবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী রয়েছে তারা হয়তো জানতে পারে এ বিষয়টা সম্পর্কে। অর্থাৎ তারা যদি জানার চেষ্টা করে তাহলে খুব সহজে জেনে নিতে পারবে আপনার নাম্বারটি কার নামে রেজিস্ট্রেশন এবং তার সমস্ত ডিটেইলস। তবে সে ক্ষেত্রে অবশ্যই তাদের অনুমতি লাগবে এক্সেস করার জন্য। যদি এক্সেস থাকে তাহলে তো প্রশ্নই ওঠে না।

তাই আপনি যদি সিম নাম্বার দিয়ে পরিচয় এ বিষয়টি নিয়ে চিন্তা করেন তাহলে এই চিন্তাটা আপনার মাথা থেকে সরিয়ে ফেলুন। কেননা আপনি যতই চিন্তা করেন না কেন এটা সম্ভব নয়।

আমার নামে কয়টি সিম রেজিস্ট্রেশন করা | রবি সিম কার নামে রেজিস্ট্রেশন করা কিভাবে জানবো

আপনার কাছে যদি এন আইডি কার্ড থাকে এবং আপনার নামে অথবা আপনার এন আইডি কার্ড দিয়ে কয়টা সিম রেজিস্ট্রেশন আছে সেটা জানতে চান তাহলে উপরে দেওয়া প্রক্রিয়াটা ব্যবহার করতে পারেন।

তার জন্য অবশ্যই আপনাকে এমন একটা নাম্বার লাগবে যেটা মূলত আপনার আইডি কার্ড দিয়েই রেজিস্ট্রেশন করেছেন। কেননা আপনাকে সেই সিম থেকেই উপরে উল্লেখিত ইউএসএসডি কোডটি ডায়াল করতে হবে।

সুতরাং আপনি যদি *১৬০০১# এই কোডটি ডায়াল করে আপনার এনআইডি কার্ডের সর্বশেষ চার ডিজিট বসিয়ে দেন তাহলে আপনি ফিরতি এসএমএস এর মাধ্যমে জানতে পারবেন আপনার নামে কয়টি সিম রেজিস্ট্রেশন করা রয়েছে।

ঠিক একই ভাবে আপনি জানতে পারবেন রবি সিম কার নামে রেজিস্ট্রেশন করা কিভাবে জানবো এই বিষয়টি। কেননা আপনাকে এসএমএস এ জানিয়ে দেওয়া হবে আপনার রবি সিম কয়টা আছে এবং অন্যান্য অপারেটরের সিম কয়টা আছে।

সিম রেজিস্ট্রেশন বাতিল করার নিয়ম 

অনেক সময় দেখা যায় আমাদের কাছে যে এনআইডি কার্ড কিংবা জাতীয় পরিচয় পত্রটা রয়েছে সেটাতে অনেক সিম রেজিস্ট্রেশন হয়ে যায় যেগুলো হয়তো আমরা অনেকেই ব্যবহার করি না।

কিংবা আমরা অনেকেই এমন অনেক সিম অনেক এমন ব্যক্তিকে রেজিস্ট্রেশন করে দিয়েছি যারা কিনা হয়তো আমাদের কয়েকদিনের জন্য পরিচিত ছিল। তাদের কাছে এনআইডি কার্ড না থাকার কারণেই মূলত আমরা এটা করে থাকি।

কিন্তু একটা দুঃখের বিষয় হচ্ছে আপনি যদি যাকে তাকে কোন একটা সিম রেজিস্ট্রেশন করে দেন তাহলে সে ব্যক্তি যদি কোন একটা খারাপ কাজ করে থাকে এবং আপনার সিমটা যদি ওনার কাছ থেকে পায় উনাকে খুঁজে না পেলে হয়তো আপনাকে ধরতে আসতে পারে।

তাই আমাদেরকে সব সময় আমাদের এনআইডি কার্ড দিয়ে যে সমস্ত অব্যবহৃত কিংবা আমাদের কাছে যে সিম গুলো নেই সেগুলো ক্যানসেল করে দেওয়া দরকার। অর্থাৎ যেটাকে আমরা অন্য ভাষায় সিম রেজিস্ট্রেশন বাতিল করার নিয়ম বলে থাকি।

সিম রেজিস্ট্রেশন বাতিল করতে হলে আপনাকে সর্বপ্রথম আপনি কোন অপারেটরের সিমটার রেজিস্ট্রেশন বাতিল করবেন সেটা দেখতে হবে। দেখার পরে যদি আপনি রবি সিম বন্ধ করতে চান তাহলে রবি সিমের যে এজেন্ট পয়েন্ট রয়েছে সেখানে যোগাযোগ করতে হবে।

তাদের এজেন্ট পয়েন্টে যোগাযোগ করার পর যদি আপনি বলেন আমি আমার এনআইডি কার্ডের মধ্যে যে রবি সিম গুলো রয়েছে সেখান থেকে এই নাম্বারটা বন্ধ করতে চাই কিংবা সবগুলো রবি নাম্বার বন্ধ করতে চাই সেটা যদি বলেন তাহলে আপনাকে সেটা করে দিবে।

তার আগে অবশ্যই তারা জানতে চাইবে সেই নম্বরগুলো আপনার আইডি কার্ড দিয়েই রেজিস্ট্রেশন করেছেন কিনা। যদি করে থাকেন তাহলে আপনার কাছ থেকে তারা ফিংগার প্রিন্ট নিবে এবং যদি আপনার ফিঙ্গার সঠিক হয় তাহলে কাজটা আপনাকে মুহূর্তের মধ্যেই করে দিবে।

আরো পড়ুনঃ

সিম রেজিস্ট্রেশন চেক অনলাইন | সিম কার নামে রেজিস্ট্রেশন করা কিভাবে জানবো

আপনার সিম রেজিস্ট্রেশন অনলাইনে চেক করার জন্য মূলত উপরে উল্লেখিত কোডটি ডায়াল করতে হবে অর্থাৎ *১৬০০১# এই কোডটি ডায়াল করে জেনে নিতে হবে। অর্থাৎ অনলাইনে google করে কিংবা ব্রাউজিং করে আমার জানামতে কোন উপায় নেই সিম রেজিস্ট্রেশন অনলাইনে চেক করার জন্য।

সে ক্ষেত্রে আপনি উপরে উল্লেখিত কোরটি ডায়াল করার পরে আপনার কাছে থাকা এনআইডি কার্ডের সর্বশেষ চার ডিজিট দিলেই আপনি ফিরতি এসএমএস এর মাধ্যমে পেয়ে যাবেন আপনার কাঙ্খিত এনআইডি কার্ডে কয়টি সিম রেজিস্ট্রেশন করা হয়েছে।

তবে আপনি যদি বিস্তারিত ভাবে জানতে চান তাহলে সিম অফারেটর কোম্পানির যে এজেন্ট পয়েন্টগুলো রয়েছে তাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। সেখানে গেলে আপনি বিস্তারিত ভাবে জানতে পারবেন আপনার এনআইডি কার্ডে কয়টি সিম রয়েছে এবং যাবতীয় প্রশ্নের উত্তর।

বিঃদ্রঃ আমি যেহেতু আপনাদের মত একজন মানুষ তাই অবশ্যই আমার ভুল হবে এটা 100%। সুতরাং আপনার যদি এখানে কোন প্রকার দেখতে পান তাহলে কমেন্টের মাধ্যমে কিংবা আমার সাথে যোগাযোগ করে জানাবেন। আমি খুব শীঘ্রই সমাধান করার চেষ্টা করব।

উপসংহারঃ আজকের এই আর্টিকেলটিতে আমি আপনাদের সাথে যে তথ্যগুলো প্রোভাইড করেছি হয়তো আপনাদের অনেক উপকারে আসবে। তাই এই আর্টিকেলটি অবশ্য শেয়ার করতে ভুলবেন না আপনার বন্ধু বান্ধব কিংবা আত্মীয়-স্বজনের কাছে যেন তারাও এই বিষয়টা একটু জেনে যায়।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url