Advertise

হারানো ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড | হারানো আইডি কার্ড পাওয়ার উপায়

হারানো ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড
হারানো ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড 


হারানো ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড আপনি যদি অনলাইন থেকে করতে চান তাহলে আপনার নিকটস্থ থানার মধ্যে গিয়ে একটা জিডি করুন। তারপরে আপনি অনলাইন থেকে খুব সহজেই আপনার আইডি কার্ড ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

আপনি কি আপনার সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ এনআইডি কার্ডটি হারিয়ে ফেলেছেন, এবং আপনি কি আপনার হারিয়ে যাওয়া আইডি কার্ড টা ৭ থেকে ১৫ দিনের মধ্যেই হাতে পেতে চাচ্ছেন কিংবা ডাউনলোড করতে চাচ্ছেন? সুতরাং আপনিও যদি এইসব সমস্যায় পড়ে থাকেন তাহলে আজকের এই আর্টিকেলটি আপনার জন্য।

আরো পড়ুনঃ বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম।বিকাশ অ্যাপ ডাউনলোড। বিকাশ সম্পর্কে বিস্তারিত

হারানো ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড | হারানো আইডি কার্ড পাওয়ার উপায়

আপনি কি ২০১৯ সালের পরেই এনআইডি কার্ড করেছেন। অর্থাৎ আপনি যখন এন আইডি কার্ড করেছিলেন তখন ২০১৯ কিংবা তার উপরে গিয়ে করেছেন। তাহলে আমার জানামতে অবশ্যই আপনি একটা পিডিএফ ফাইল থেকে আপনার এন আইডি কার্ড টা প্রিন্ট করে নিয়েছিলেন। সুতরাং আপনি যদি আপনার আইডি কার্ড টা সর্বপ্রথম পিডিএফ ফাইল থেকে প্রিন্ট করে নিয়ে থাকেন তাহলে আপনি এখনো চাইলে সেই পিডিএফ ফাইল থেকে আবারও আইডি কার্ড প্রিন্ট করে নিতে পারেন।

যদি তখনকার সময়ে আপনার কাছে যে পিডিএফ ফাইলটা ছিল সেটা খুঁজে না এখন তাহলে আপনি Nid wing এ লগ ইন করে খুব সহজেই বিনামূল্যে আপনার পিডিএফ ফাইলটা কিংবা আইডি কার্ডের সংগ্রহ করে নিতে পারবেন।

তাছাড়া আপনি যদি দে ২০১৯ সালের আগে ভোটার হয়ে থাকেন তাহলে দুর্ভাগ্যবশত আপনি Nid wing থেকে বিনামূল্যে আপনার আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে পারবেন না। অর্থাৎ আপনি ২০১৯ সালের আগে ভোটার হয়ে গেছেন এবং হাতে স্মার্ট কার্ড পেয়ে গেছেন সেক্ষেত্রে আপনি ২০১৯ সালের আগে ভোটার হয়ে থাকলে এনআইডি উইং থেকে আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র টা ডাউনলোড করতে পারবেন না।

সে ক্ষেত্রে আপনাকে ২৩০ টাকা খরচ করে ফি দেওয়ার মাধ্যমে আবারো আপনার আইডি কার্ডটি রিইস্যু করতে হবে। অর্থাৎ আপনাকে সে ক্ষেত্রে ২৩০ টাকা খরচ করতে হবে রিইস্যুর আবেদনের জন্য।

জাতীয় পরিচয় পত্র রিইস্যুর আবেদন করার নিয়ম |হারানো ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড 

আপনার হারিয়ে যাওয়া আইডি কার্ড ফিরে পাওয়ার জন্য রিইস্যুর আবেদন করার ক্ষেত্রে আপনার নিকটস্থ থানায় জিডি (সাধারণ ডায়েরি) এর কপি সংযুক্ত করে আবেদন করতে হবে। সুতরাং আপনি এসব বিষয় সম্পর্কে বিস্তারিত জানার জন্য আর্টিকেল শেষ পর্যন্ত পড়বেন।

স্টেপ -- জিডির জন্য অনলাইন/অফলাইন আবেদন করুন | আইডি কার্ড ডাউনলোড

আপনার নিকটস্থ থানায় গিয়ে জিডি করার জন্য লিখিত একটি লিখিত জিডির আবেদন করতে হবে। তাছাড়া আপনি চাইলে খুব সহজে অনলাইনেও জিডির আবেদন করতে পারবেন।

যদি আপনি যে জিডি সেটা তা না করতে গৃহীত হয় তাহলে আপনার জেরি টা যে পুলিশ অফিসার এপ্রুভ করেছে তার নাম এবং নম্বর সংগ্রহ করুন। কেননা পরবর্তীতে আপনাকে সেগুলো রিইস্যুর ক্ষেত্রে প্রয়োজন হতে পারে।

স্টেপ -- Nid wing এ রেজিস্ট্রেশন করুন | হারানো ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড 

আপনার থানায় জিডি করা যখন সম্পন্ন হয়ে যাবে তখন আপনাকে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের যে জাতীয় পরিচয় পত্র সেবায় নিয়োজিত ওয়েবসাইট রয়েছে সেখানে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। সেটার নাম হচ্ছে এনআইডি উইং (Nid wing) এখানে রেজিস্ট্রেশন করুন।

যদি আপনি এনআইডি উইং এর মধ্যে নতুন ভাবে একাউন্ট খুলেন তাহলে সে ক্ষেত্রে আপনাকে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে আর যদি আগে থেকে একাউন্ট খোলা থাকে সেক্ষেত্রে লগইন করতে হবে। লগইন করার জন্য আপনার এনআইডি নাম্বার এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করুন। যদি পাসওয়ার্ড ভূলে যান তাহলে পাসওয়ার্ডটি আবার রিসেট করতে পারেন।

স্টেপ -- রিইস্যুর আবেদন করুন |‌ হারানো আইডি কার্ড উত্তোলন করার নিয়ম

রেজিস্ট্রেশন করার পর যখন আপনার ফেস ভেরিফিকেশন সম্পন্ন হয়ে যাবে তখন আপনি এনআইডি উইংয়ের মধ্যে লগইন করতে পারবেন। যদি আগে থেকেই রেজিস্ট্রেশন/একাউন্ট করা থাকে তাহলে লগইন করে ফেলুন। নিচের স্টেপস গুলো ভালোভাবে ফলো করুন‌ --

  • লগইন করার পর আপনার সামনে একটা ড্যাশবোর্ড ওপেন হবে সেখানে একটা রিইস্যু নামে অপশন দেখতে পাবেন সুতরাং সেখানে ক্লিক করুন
  • রিইস্যু‌ বাটনে ক্লিক করার সাথে সাথে আপনার সামনে আরেকটা ফেজ ওপেন হবে যেখানে আপনি আপনার আইডি কার্ডের জন্য রিইস্যু করার একটা ফরম দেখতে পাবেন। মূলত এই ফর্মটি আপনাকে ভালোভাবে পূরণ করার পরে সাবমিট করতে হবে।
  • নিচে একটা ছবি দেওয়া আছে সেখানে আপনি ফর্মের একটা অংশ দেখতে পাচ্ছেন যেটি কিনা লাল রংয়ের মার্ক করা আছে। সেই মার্ক করা অংশে আপনাকে সাধারণ ডায়েরি কিংবা জিডির তত্ত্ব পূরণ করতে হবে। এবং উপরে দেওয়া পরবর্তী বাটনে ক্লিক করুন।
    রিইস্যুর আবেদন করুন |‌ হারানো আইডি কার্ড উত্তোলন করার নিয়ম

  • এখন আপনাকে রিইস্যুর আবেদন ক্ষেত্রে যে ফি রয়েছে সেটা দিতে করতে হবে। জাতীয় পরিচয় পত্র রিইস্যুর সাধারণ ফি ভ্যাসহ ৩৪৫ টাকা, জরুরী ভিত্তিতে আপনাকে ফি প্রদান করতে হবে ভ্যাট সহ ৫৭৫ টাকা।
  • ফি প্রদান করার পরে আপনার আবেদনের ধরন (রিইস্যু) এবং বিতরণের ধরন normal/urgent সিলেক্ট করতে হবে, এবং আপনাকে সেই অনুযায়ী পেমেন্ট করতে হবে।
  • এখন আপনাকে উপরে যে পরবর্তী বাটন রয়েছে ডান পাশে সেখানে ক্লিক করতে হবে। তারপর আপনার জিডি যেটা রয়েছে সেটার একটা স্ক্যান কপি অথবা সোজাসুজি ছবি তোলা একটি ছবি সাবমিট করতে হবে। অবশ্যই ছবি তোলার ক্ষেত্রে পরিষ্কারভাবে তোলার চেষ্টা করবেন ভালো একটা আলোতে গিয়ে।

হারানো জাতীয় পরিচয় পত্রের যে জিডিটা করা হয়েছে সেটা সাবমিট করার পরে অর্থাৎ আপলোড হয়ে গেলে এখন আপনাকে আবেদনটি সম্পন্ন করতে হবে। আশা করা যায় সাত থেকে ১৫ দিনের মধ্যে আপনার আবেদনটি আপলোড করা হবে।

আরো পড়ুনঃ নতুন ভোটার আইডি কার্ড করার নিয়ম | ভোটার আইডি কার্ড পেতে কতদিন লাগে

স্টেপ -- এনআইডি কার্ড কিংবা জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড করুন | হারানো ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড 

এখন আপনি যখন আপনার আবেদনটি করার পরে মোবাইলের মধ্যে এপ্রুভ হয়েছে এমন এসএমএস পাবেন তখন আপনাকে সর্বপ্রথম এন আই ডি উইংয়ের (Nid wing) মধ্যে লগইন করে সেখান থেকে ডাউনলোড করে নিতে হবে।

ডাউনলোড করার জন্য সর্বপ্রথম এন আই ডি উইংয়ের মধ্যে গিয়ে আপনার দেওয়া এনআইডি কার্ড নাম্বার এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করে ফেলুন। পাসওয়ার্ড ভুলে গেলে আবার পুনরায় পাসওয়ার্ড সেট করার জন্য আবেদন করতে পারবেন।

সুতরাং সেখানে প্রবেশ করার পরে কিংবা লগইন করার পরে আপনি ডাউনলোড নামে একটা অপশন দেখতে পাবেন সেখান থেকে আপনার কাঙ্ক্ষিত এন আইডি কার্ডটি ডাউনলোড করে নিন।

যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এসএমএস পাওয়ারের সাথে সাথেই ডাউনলোড করে নেওয়ার চেষ্টা করবেন। সেখান থেকে ডাউনলোড করে কোন একটা কম্পিউটারের দোকানে কিংবা লেমিনেটিং এর দোকানে গিয়ে প্রিন্ট করে ব্যবহার করা শুরু করে দিন।

তবে আপনি যদি লেট করেন কিংবা ডাউনলোড করতে গাফিলতি করেন হয়তো কোন একটা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে আর ডাউনলোড করতে পারবেন না। তাই খুব শীঘ্রই এসএমএস পাওয়ার সাথে সাথেই ডাউনলোড করে নেওয়ার চেষ্টা করুন। যার কারণে ফরে আবার বিভিন্ন সমস্যায় পড়তে হতে পারে।

আইডি কার্ড হারিয়ে গেলে করণীয় | হারানো ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড 

আমাদের কাছ থেকে যখন আমাদের জাতীয় পরিচয় পত্র টা হারিয়ে যায় তখন আমরা অনেক ক্লান্ত বোধ করি। কেননা এই আধুনিক যুগে আমাদের পরিচয় দেওয়ার জন্য আমাদের দেশের পরিচয় দেওয়ার জন্য কিংবা আমরা যে বাঙালি সেটার পরিচয় দেওয়ার জন্য আমাদেরকে অবশ্যই জাতীয় পরিচয় পত্র ব্যবহার করতে হয়।

ব্যাংক থেকে শুরু করে বিদেশ যাত্রা, বিদেশ ভ্রমণ সবখানে আমাদের এই এনআইডি কার্ডের প্রয়োজন পড়ে। যার কারণে আমাদের নিত্য প্রয়োজনীয় একটি জিনিসের নাম হচ্ছে এনআইডি কার্ড। মাঝেমধ্যে আমাদের হঠাৎ করে এন আইডি কার্ড টা হারিয়ে যায় কোন একটা দুর্ঘটনার কারণে কিংবা অন্য কোনো কারণে।

আরো পড়ুনঃ বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম।বিকাশ অ্যাপ ডাউনলোড। বিকাশ সম্পর্কে বিস্তারিত

পুরাতন আইডি কার্ড বের করার নিয়ম

এখন আমি আপনাদেরকে জানাবো আইডি কার্ড হারিয়ে গেলে করণীয় কি এই বিষয় সম্পর্কে। যদি আপনার এন আইডি কার্ড টা হারিয়ে যায় তাহলে আপনি তাড়াতাড়ি থানায় গিয়ে আপনার আইডি কার্ড হারিয়ে গেছে এমন একটি জিডি করুন।

তারপর আপনার জিডিটি যে পুলিশ অফিসার এপ্রুভ করবে তার একটা নাম এবং মোবাইল নাম্বার সংগ্রহ করুন। কেননা পরবর্তীতে যখন আপনি আপনার আইডি কার্ড টা রিইস্যু করার জন্য আবেদন করবেন তখন এই জিডির প্রয়োজন পড়বে।

তারপর আমার দেখানো আর্টিকেলের উপরে দেওয়া স্টার্ট গুলো ভালোভাবে ফলো করে এবং সেই অনুযায়ী আপনার হারিয়ে যাওয়া এন আই ডি কার্ড এর আবেদন করুন যেন আপনি হাতেই পেয়ে যান ৭ থেকে ১৫ দিনের মধ্যে।

বিঃদ্রঃ পুরাতন আইডি কার্ড বের করার নিয়ম সম্পর্কে অন্য কোন সময় একটি আর্টিকেল দেওয়ার চেষ্টা করব

সিম নাম্বার দিয়ে আইডি কার্ড বের করা | হারানো ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড 

আমরা অনেক সময় একটা বিষয় বিরক্ত কর বোধ করি সেটা হচ্ছে একটা অজানা অচেনা মোবাইল নাম্বার যখন আমাদেরকে অযথা ফোন দিয়ে বিরক্ত করে। যার কারণে আমাদেরকে তাদেরকে খুঁজে পাওয়া সেই লোকটাকে এটা জানার আগ্রহ জেগে ওঠে।

সুতরাং আমি এখন আপনাদেরকে জানাবো আদৌ কি শুধুমাত্র সিম নাম্বার দিয়ে আইডি কার্ড বের করা যায়? সুতরাং আপনি যদি এই বিষয় সম্পর্কে জানতে চান তাহলে থেকে জেনে নিন।

ভোটার আইডি কার্ড চেক

দুর্ভাগ্যবশত আপনি চাইলেই যে কারো মোবাইল নাম্বার দিয়ে আপনি তার আইডি কার্ড টা বের করতে পারবেন না। যদিও বা আপনি ইউটিউব কিংবা অন্যান্য ওয়েবসাইট এর মধ্যে এরকম প্রোফাইল দেখতে পান আমি বলব আসলে মূলত সেগুলো ভুয়া।

কেননা আপনি হয়তো হাজারবার চেষ্টা করেও তাদের দেখানো পদ্ধতি অনুযায়ী কারো এনআইডি কার্ড বের করতে পারেন নাই তাদের মোবাইল নাম্বার দিয়ে। তো আপনি এই প্রশ্নের উত্তর যদি খুঁজে দিতে চান তাহলে জেনে নিন ব্যর্থ। অর্থাৎ আপনি শুধুমাত্র মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র বের করতে পারবেন না।

ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন কপি

এখন আপনি ইচ্ছে করলে খুব সহজেই অনলাইন থেকে আপনার ভোটার আইডি কার্ড টা ডাউনলোড করতে পারবেন। অর্থাৎ যেটাকে কে আমরা অনেকেই ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন কপি বলে থাকি।

সুতরাং আপনি যদি অনলাইন থেকে আপনার ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে চান সে ক্ষেত্রে আপনার প্রয়োজন হবে একটা জিনিস সেটা হচ্ছে আপনি ভোটার হওয়ার সময় আপনাকে যে স্লিপটা দেওয়া হয়েছিল সেটা।

আইডি নাম্বার দিয়ে আইডি কার্ড ডাউনলোড

তারপর www.service.nidw.gov.bd এই ওয়েব সাইটে প্রবেশ করে যদি রেজিস্ট্রেশন করার প্রয়োজন পড়ে তাহলে রেজিস্ট্রেশন করে ফেলুন এবং পরবর্তীতে আবার লগইন করুন। যদি করার প্রয়োজন না পড়ে তাহলে করতে হবে না।

পরবর্তীতে আপনার যাবতীয় স্টেপগুলো পরিপূর্ণ করে আপনার আইডি কার্ডটা সেখান থেকে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন অথবা অনলাইন কপি সংগ্রহ করে নিতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ অনলাইনেই মিলবে জাতীয় পরিচয় পত্র

হারানো আইডি কার্ড উত্তোলনের আবেদন ফরম

আপনার আইডি কার্ড থেকে হারিয়ে গেছে এবং সেটা উত্তোলন করতে চাচ্ছেন। উত্তরণ করা খুবই সহজ একটা প্রক্রিয়া অর্থাৎ আপনি খুব সহজ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আপনার কাঙ্খিত আইডি কার্ডটি সংগ্রহ করতে পারবেন আবারো।

তার জন্য অবশ্যই আমার আর্টিকেলের উপরে দেওয়া বিষয়গুলো খুব ভালোভাবে মনোযোগ দিয়ে পড়ে সে অনুযায়ী কাজ করার চেষ্টা করি। এবং আমি আশা করি আপনি খুব শীঘ্রই আপনার হারানো আইডি কার্ড টা ফিরে পাবেন।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url