Advertise

আমার লোকেশন কোথায় | হ্যালো গুগল আমি এখন কোথায় আছি | গুগল ম্যাপে মোবাইল লোকেশন বের

আমাদের মধ্যে এমন লোক খুঁজে পাওয়া দুষ্কর যে ব্যক্তি কিনা ঘুরতে ফিরতে পছন্দ করে না। সবাই চায় প্রতিনিয়ত নিত্যনতুন কোন একটা জায়গায় ঘুরতে যাওয়ার জন্য। কিন্তু যারা ঘুরতে যাই তাদের মনে একটা প্রশ্ন জাগে সেটা হচ্ছে ‌ জায়গাটা তো নতুন লোকেশন কিভাবে চিনবো?

তাই অনেকের মনে একটা প্রশ্ন জাগতে পারে আমার লোকেশন কোথায়, আমি এখন কোথায় আছি, আমি এখন কোন গ্রামে আছি, আমি এখন কোন শহরে আছি ইত্যাদি। সুতরাং এই প্রশ্নগুলো কিংবা এখন আপনি কোথায় আছেন এটা জানার জন্য অনেকের মনে তখন আগ্রহ জেগে উঠে কিংবা জানা অত্যন্ত প্রয়োজন হয়ে ওঠে।

আমার লোকেশন কোথায় | হ্যালো গুগল আমি এখন কোথায় আছি | গুগল ম্যাপে মোবাইল লোকেশন বের


আপনার মাথায় সব সময় এটা আসতে থাকবে কিংবা প্রশ্ন উঠবে সেটা হচ্ছে আমি বর্তমান লোকেশন কোন জায়গায় আছি,আমার বর্তমান লোকেশন কোথায়,আমার লোকেশন কোথায় এখন ইত্যাদি।

তবে চিন্তার কোন কারণ নেই, কেননা এই প্রযুক্তি কিংবা ডিজিটাল যুগের মধ্যে সবগুলোই ডিজিটাল হয়ে গেছে। সুতরাং আজকের এই আর্টিকেলে আমরা জানবো আপনি কিভাবে ডিজিটালিটি ব্যবহার করে আপনি বর্তমান কোথায় আছেন সেটা দেখবেন। তাই আজকের এই আর্টিকেলটি পড়ার পরে আমার মতে আপনার আর কোন চিন্তা থাকবে না লোকেশন সম্পর্কে।

কারণ আজকে আমার এই ওয়েবসাইটেই নিয়ে এসেছি আপনি কোথায় আছেন কিভাবে দেখবেন এখন আপনার লোকেশন কোথায়। তাই আপনি যদি এসব বিষয় সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে জানতে চান তাহলে আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়তে ভুলবেন না। তাহলে চলুন আর কথা না বাড়িয়ে শুরু করা যাক।

আরো পড়ুনঃ

আমার লোকেশন কোথায় | হ্যালো গুগল আমি এখন কোথায় আছি | আমার বাড়ি কোথায়

আমার লোকেশন কোথায় কিংবা আমি এখন কোথায় আছি এইসব প্রশ্নের উত্তর যদি আপনি মুহূর্তে পেতে চান তাহলে আপনাকে আপনার স্মার্টফোন প্রয়োজন হবে। ওহ, শুধু স্মার্টফোন হলেই হবে না আপনার স্মার্টফোনে যে গুগল ম্যাপ অ্যাপ্লিকেশন টা রয়েছে সেটা লাগবে।

সাধারণত আমরা জানি প্রায় প্রত্যেকটা স্মার্টফোনের মধ্যেই রয়েছে গুগল ম্যাপ এই অ্যাপ্লিকেশনটি। আশা করি আপনাকে ডাউনলোড করতে হবে না আপনি আপনার ফোনের আনাচে কানাচে চেক করে এই অ্যাপসটা বের করে নিন।

সুতরাং এখন আপনার কাজ হচ্ছে আপনার হাতে আপনার স্মার্টফোন কিংবা অ্যান্ড্রয়েড ফোনটা নেওয়া এবং এন্ড্রয়েড ফোনের মধ্যে যে গুগল ম্যাপ নামে রয়েছে কিংবা অ্যাপসটা রয়েছে সেটা ওপেন করা।

আরেকটা কথা হচ্ছে আপনার কাছে যদি এখন ইন্টারনেট সংযোগ না থাকে তাহলে আপনাকে মেগাবাইট নিতে হবে কিংবা কারো কাছ থেকে ওয়াইফাই কানেক্ট করতে হবে। সুতরাং এখন আপনার কাজ হচ্ছে তিনটি ‌ অর্থাৎ আপনার লোকেশন বের করার জন্য কিংবা ‌আমার লোকেশন কোথায় এ প্রশ্নের উত্তর জানার জন্য আপনার তিনটি জিনিসের প্রয়োজন হবে যেগুলো নিচে দেওয়া হল:-

  • আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোন কিংবা স্মার্টফোন
  • গুগল ম্যাপ অ্যাপ
  • ইন্টারনেট সংযোগ ওয়াইফাই কিংবা ডাটা

আপনি যদি গুগল ম্যাপ এই অ্যাপ্লিকেশনটি খুঁজে নেওয়া পান তাহলে আপনার ফোনে যে সার্চ বারটা রয়েছে সেখানে google map লিখে সার্চ করতে পারেন। যদি আগে থেকেই ডাউনলোড করে থাকে তাহলে আপনি অটোমেটিকালি ভাবে দেখতে পাবেন। সুতরাং সেখান থেকে আপনি খুব সহজেই ওপেন করে নিতে পারবেন সেটাতে আপনি জানেনই।

ওহ, আরেকটা কথা হচ্ছে আপনার কাছে যদি সেই অ্যাপসটা ইন্সটল করে না তাকে কিংবা আগে থেকে ডাউনলোড করা না থেকে তাহলে এটা প্লেস্টোর থেকে ডাউনলোড করে নিতে হবে। যেটাকে আমরা অনেকেই গুগল প্লে স্টোর বলে থাকি, বর্তমান সময়ের সেরা একটি অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড সফটওয়্যার। আমার জানামতে আপনার ডাউনলোড করা লাগবে না আগে থেকে সেটা আপনার ফোনে ডাউনলোড করা থাকবে। তাহলে চলুন আরো বিস্তারিত জানার জন্য আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়ে আসি।

আরো পড়ুনঃ 

গুগল ম্যাপে মোবাইল লোকেশন বের | গুগোল আমার বাড়ি কোথায় | আমার লোকেশন কোথায়

এই কাজগুলো সম্পন্ন করার জন্য আপনাকে সর্বপ্রথম আপনার google ম্যাপ যে সফটওয়্যারটা আপনাকে ডাউনলোড করতে বলেছিলাম সেটা ওপেন করতে হবে। ওহ, আগে দেখেই যদি ডাউনলোড করা থাকে তাহলে আপনাকে সেখান থেকেই ওপেন করলে হবে আবার ডাউনলোড করতে হবে নাকি কিংবা ডাউনলোড করা যাবে না।

তাছাড়া আমি আপনাদেরকে আগে বলেছিলাম আপনি যদি আপনার গুগল ম্যাপ এই সফটওয়্যার টা খুলছেন এখন তাহলে আপনার মোবাইলে যে সার্চ বারটা রয়েছে সেখানে সার্চ করতে পারেন। যদি আপনার ফোনে থাকে সার্চ বারটাও খুঁজে না পান তাহলে আপনি যদি প্লে স্টোরে গিয়ে google ম্যাপ লিখে সার্চ করেন তাহলে সেখান থেকেই ওপেন করতে পারবেন সরাসরি।

সুতরাং এখন আপনার কাজ হচ্ছে আপনার মোবাইলে টাকা গুগল ম্যাপটি ওপেন করা এবং আরেকটা গুরুত্বপূর্ণ কাজ হচ্ছে এই ক্ষেত্রে আপনার মোবাইলে থাকা যে লোকেশনটা রয়েছে সেটা ওপেন করা। আশা করি বুঝতে পেরেছেন।

আপনি খুব সহজেই এই গুরুত্বপূর্ণ কাজটা করতে পারবেন আপনার নোটিফিকেশন বার থেকে। অর্থাৎ আপনি ডাটা যেখান থেকে ওপেন করেন সেখান থেকেই কোথাও আশেপাশে আপনি দেখতে পাবেন একটা লোকেশন বাটন সেটা ওপেন করুন। অর্থাৎ ডাটার মতো একটা লোকেশন রয়েছে সেটাতে চাপ দিলেই ডাটা যেমন ওপেন হয়ে যায় ঠিক তেমনি লোকেশন ওপেন হয়ে যাবে।

তবে আরেকটা বিষয় মনে রাখবেন সেটা হচ্ছে আমি যেটা কিনা আগেই একবার বলেছিলাম আপনার মোবাইল ফোনে অবশ্যই ডাটা কানেকশন থাকতে হবে। কেননা কম বেশি আমরা সকলেই জানি ডিজিটালি পরীক্ষা হতে কোন একটা কিছু করতে হলে অবশ্যই ইন্টারনেট সংযোগে করতে হয়।

আপনি আপনার লোকেশন ওপেন করার পর এবং আপনার google ম্যাপটি ওপেন করলেই আপনি সেখানে একটা বাটন দেখতে পাবেন। অর্থাৎ একটা সাদা বাটন রয়েছে যেটার মধ্যখানে একটা সবুজ আকারের চিহ্ন রয়েছে সেটাতে ক্লিক করুন।

ক্লিক করার সাথে সাথে আপনি কোথায় আছেন সেই জায়গাতে নেটটা ঘুরে ফিরে নিয়ে যাবে। সুতরাং এই বাটনটাতে ক্লিক করার সাথে সাথে আপনি কোথায় আছেন কোন জায়গাতে আছেন এবং আমার লোকেশন কোথায় এসব প্রশ্নের উত্তর মুহূর্তেই পেয়ে যাবেন।

আপনার লোকেশন টা দেখার পাশাপাশি আপনি এখানে রাস্তা কোন দিকে কোথায় গেছে সবগুলো দেখতে পাবেন এবং আপনার আশেপাশে কি আছে কোন জায়গায় আছে সবগুলোর নাম সেখানে দেখতে পাবেন। এমনকি আপনার আশেপাশে যদি কোন একজন বিখ্যাত ব্যক্তি থাকে তাহলে তার বাড়িও দেখতে পাবেন।

এখন আপনার মনে প্রশ্ন জাগতে পারে এটা কি আসলেই সম্ভব? আমি বলব হ্যাঁ, কেননা মূলত এখানে ছবিগুলো স্যাটেলাইট দ্বারা তোলা হয় এবং সেগুলো গুগল ম্যাপে এড করা হয়। আশা করি আপনি এখন খুব ভালোভাবে বুঝে গেছেন।

আরো পড়ুনঃ

হ্যালো গুগল আমি এখন কোথায় আছি | গুগোল আমার বাড়ি কোথায় | আমার লোকেশন কোথায়

আপনি এখন কোথায় আছেন এ প্রশ্নের উত্তর আপনি খুব সহজে দেখতে পাবেন। কিন্তু কিভাবে সহজ পদ্ধতিতে আপনি এটা ব্যবহার করবেন কিংবা জানবেন এটা কি আপনি জানেন? তাহলে আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়ুন। কেননা আজকের এই আর্টিকেলে আপনি অবশ্যই একটা আশা-আকাঙ্ক্ষা নিয়ে এসেছেন যে, আপনি এখান থেকে কোন একটা বিষয় শিখে যাবেন।

তাই আপনাদেরকে যেহেতু আমি উপরে বলে দিয়েছি কিভাবে আপনি আপনার লোকেশন বের করবেন গুগল ম্যাপ এই সফটওয়্যার কিংবা অ্যাপসটা ব্যবহার করার মাধ্যমে। এখন আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করব কিভাবে আপনি খুব সহজেই এটার কার্যক্রম সম্পন্ন করতে পারবেন।

এখন আমি আপনাদেরকে যে বিষয়টা বলতে যাচ্ছি সেটা হচ্ছে Google assistant এর কথা। মূলত এখানে হচ্ছে আপনি সরাসরি লিখে সার্চ না করেই মুখে বলে সার্চ করবেন। গুগল এসিস্টেন্ট এর কাছে যে সমস্ত তথ্য অ্যাভেলেবল আছে সেগুলো যদি আপনি সার্চ করেন তাহলে আপনাকে মুহূর্তের মধ্যেই বলে দিবে সবগুলো প্রশ্নের উত্তর।

সুতরাং আপনি যদি আপনার লোকেশন টা ওপেন করার পরে গুগল এসিস্টেন্ট কে বলেন আমি এখন কোথায় আছি? তাহলে আপনাকে বলে দিতে সক্ষম গুগল এসিস্টেন্ট আপনি কোথায় আছেন। তবে আমি গুগল এসিস্টেন্ট সম্পর্কে আরেকটা আর্টিকেল পাবলিশ করার চেষ্টা করব সেখান থেকে আপনারা দেখে নিতে পারেন।

আরো পড়ুনঃ

উপসংহারঃ আপনি যদি আজকের এই আর্টিকেল থেকে যেটা কিনা আমি লিখেছি আমার লোকেশন কোথায় এই বিষয় সম্পর্কে। কোন একটা কিছু জানতে পারলে অবশ্যই আপনার বন্ধু-বান্ধব কিংবা আত্মীয়-স্বজনের কাছে শেয়ার করতে ভুলবেন না। যেন তারাও আপনার একটা শেয়ারের কারনে এই অজানা বিষয়টা জেনে যায়।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url