Advertise

১ বিটকয়েন সমান কত টাকা

হাই বন্ধুরা! কেমন আছেন? আশা করি আপনারা সবাই আল্লাহর রহমতে ভালো আছেন। আজকের আমি অনেকদিন পরে আপনাদের জন্য অন্য আরেকটি ভিন্ন আর্টিকেল নিয়ে হাজির হয়েছি।

মূলত আজকের এই আর্টিকেলে আমি যে বিষয় নিয়ে আপনাদের সাথে আলোচনা করব সেটা হচ্ছে ১ বিটকয়েন সমান কত টাকা তাছাড়া আরো অনেক বিষয়বস্তু সম্পর্কে জানতে পারবেন সম্পর্কে। তাহলে চলুন আর কথা না বাড়িয়ে শুরু করা যাক।

আমরা যেহেতু বিটকয়েন নিয়ে আজকের এই আর্টিকেলটি সাজিয়েছি তাই সর্বপ্রথম আমাদেরকে আগে জানতে হবে বিটকয়েন কি? তাহলে চলুন ন সেই বিষয়টা একটু জেনে নেয়া যাক

১ বিটকয়েন সমান কত টাকা
১ বিটকয়েন সমান কত টাকা


আরো পড়ুনঃ মালয়েশিয়া কি কি কাজ করা যায় | মালয়েশিয়া ভিসা কবে থেকে শুরু হবে

আজকের আলোচ্য বিষয়ে সমূহ

  • বিটকয়েন কি?
  • ১ বিটকয়েন সমান কত টাকা
  • বিটকয়েন এর আবিষ্কারক কে?
  • বিটকয়েনের সুবিধা ও অসুবিধা কি ?
  • বিটকয়েনের ইতিহাস কি?
  • বাংলাদেশে কি বিটকয়েন অবৈধ?
  • বিটকয়েন কিভাবে কাজ করে

বিটকয়েন কি?

বিটকয়েন হচ্ছে একটি ডিজিটাল মুদ্রা অথবা ক্রিপ্টোকারেন্সি যেটা কিনা মূলত একজন সাতোশি নাকামাতো নামের এক ব্যক্তি অথবা সেই নাম অনুযায়ী একটা অজ্ঞাত দল এই ক্রিপ্টোকারেন্সির আবিষ্কার করে। 

তারা সর্বপ্রথম মার্কেটের মধ্যে ২০০৮ সালেই এই ক্রিপ্টোকারেন্সি লঞ্চ করে এবং পরবর্তীতে এর প্রচলন শুরু হয় ২০০৯ সালে।

আমি আপনাদেরকে যদি সহজ ভাষায় বিটকয়েন কি এই বিষয়টার সংজ্ঞা করি তাহলে বলা চলে বিটকয়েন হচ্ছে এমন একটি ডিজিটাল মুদ্রা যেটা কিনা শুধুমাত্র অনলাইনের মধ্যেই পেয়ার টু পেয়ার ট্রানজেকশন হয়ে থাকে।

তাছাড়া ইন্টারনেটের মধ্যে যে সমস্ত ব্যাংকিং সেবা রয়েছে যেমন পেপাল/পিওনার প্রচলিত নিয়ম অনুযায়ী ক্রেডিট কার্ড কিংবা ডেবিট কার্ডের মাধ্যমে লেনদেন করে থাকে।

অন্যদিকে বিটকয়েন কিংবা ক্রিপ্টোকারেন্সির লেনদেন হচ্ছে ডিসেন্ট্রালাইজড অর্থাৎ পৃথিবীর যেকোনো ব্যক্তি যে কোন প্রান্ত থেকে পৃথিবীর অন্য যেকোন প্রান্তে নিমিষেই এই ক্রিপ্টোকারেন্সি কিংবা বিটকয়েন পাঠাতে সম্ভব।

বিটকয়েন এর মাধ্যমে যে সমস্ত লেনদেন হয়ে থাকে পৃথিবীর মধ্যে সবগুলো ব্লক চেইন এর মধ্যেই সংরক্ষণ করা থাকে যেটা কিনা মূলত প্রচলন ব্যাংকের খতিয়ানের মতো এই কাজ করে। মূলত এটা বিটকয়েনের তৈরি করা একটি রেকর্ডস্বরূপ।

বিটকয়েন কিংবা ব্লকসিন এর যে সমস্ত ui. রয়েছে সবগুলোই ইন্টারনেটের মধ্যে চড়িয়ে ছিটিয়ে থাকে। কোন কোম্পানি কিংবা প্রতিষ্ঠানের নিয়ন্ত্রণে এই বিটকয়েন চলে না।

আরো পড়ুনঃ

১ বিটকয়েন সমান কত টাকা বাংলাদেশের |এক বিটকয়েন সমান কত ডলার

বর্তমান এই আধুনিক সময়ের মধ্যে বিটকয়েন চিনেনা এমন লোক পাওয়া যাওয়া দুষ্কর বললেই চলে। এমনকি অনেক দেশেই এ পর্যন্ত অনেক রাষ্ট্রীয় প্রধান নিয়ে কাজ করতেছে। কিংবা অনেক বিলিয়নেররা আছে যারা কিনা বিটকয়েনের মধ্যে কোটি কোটি টাকা ইনভেস্ট করে রেখেছে।

কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত বাংলাদেশ এবং ভারত ইত্যাদির মত দেশগুলোতে এখনো পর্যন্ত আশা করি বিটকয়েন অবৈধ বলে ঘোষণা করা হয়েছে। অর্থাৎ বিটকয়েন নিয়ে লেনদেন করা কিংবা বিটকয়েন মাইনিং করা বাংলাদেশের মধ্যে বৈধ নয়।

বিটকয়েন হচ্ছে একটা ভার্চুয়াল মুদ্রা যেটা এক মিনিট শুধুমাত্র অনলাইনের মধ্যেই লেনদেন করা সম্ভব। আমাদের মধ্যে যে সমস্ত কাগজের নোট রয়েছে কিংবা কয়েন রয়েছে সেগুলো আমরা হাতে স্পর্শ করতে পারি। কিন্তু আপনি বিটকয়েন যে অনলাইন মুদ্রা কিংবা ভার্চুয়াল মধ্যে রয়েছে সেগুলো আপনি হাতে স্পর্শ করতে পারবেন না।

আজকে আমরা যেসব বিষয় নিয়ে আলোচনা করব তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে এক বিটকয়েন সমান কত ডলার বা ১ বিটকয়েন সমান কত টাকা বাংলাদেশের। তাহলে আর দেরি না করে জেনে নেয়া যাক আপনি যদি একটা বিটকয়েন ক্রয় করেন কিংবা আপনার কাছে যদি একটা কয়েন থাকে তাহলে আপনি কত টাকার মালিক।

আরো পড়ুনঃ ঈদুল আযহা নামাজের নিয়ম | ঈদুল আযহার নামাজের নিয়ত

বিটকয়েন এর আবিষ্কারক কে?

মূলত সর্বপ্রথম বিটকয়েন যে ব্যক্তি কিংবা যে একটি দল প্রতিষ্ঠা করেছিলেন তিনি কিংবা তারা এখনো পর্যন্ত অজ্ঞাত রয়েছে। কেননা এখনো পর্যন্ত তাদের কোনো প্রকার খোঁজখবর কিংবা তারা কে এটা এখনো জানা যায়নি।

তবে এতোটুকু জানা যায় বিটকয়েন যারা আবিষ্কার করেছিলেন তারা একটি দল ছিল কিংবা এমন একজন ব্যক্তির নাম ছিল যার নাম কিনা সাতোশি নাকামাতো ২০০৯ সালে এর প্রচলন শুরু হয় পেয়ার টু পেয়ার লেনদেনের মাধ্যমে।

১ বিটকয়েন সমান কত টাকা

বিটকয়েন হচ্ছে এমন একটি ভার্চুয়াল মুদ্রা যেটার দান কিনা মূলত এমন পণ্যের মতো উঠানামা করে যেগুলোর দাম একদিন অন্যরকম আরেক দিন অন্যরকম।

অর্থাৎ আমি বলতে চাইছি প্রত্যেকদিন বিটকয়েনের দাম এক থাকে না। অর্থাৎ আপনি যদি আজকে ১০ লাখ টাকা দেখেন অন্যদিন দেখবেন ১১ লাখ টাকা কিংবা এর চেয়ে কম কিংবা বেশি।

তবে আজকের তারিখ হচ্ছে ১৩ ই জুলাই ২০২২ আজকে বর্তমান বিটকয়েনের বাজার রেট যেটা রয়েছে সেটা হচ্ছে 1,823,165.61 BDT আশাকরি জানতে পেরেছেন বিটকয়েন এর বাজার মূল্য বর্তমান কত।

আরো পড়ুনঃ এসএসসি রেজাল্ট চেক | SSC result দেখার নিয়ম

বিটকয়েনের সুবিধা ও অসুবিধা কি ? ১ বিটকয়েন সমান কত টাকা

আমরা যদি বিটকয়েন ব্যবহার করার চিন্তা ভাবনা করে থাকি তাহলে অবশ্যই আমাদেরকে সেখানে যে সমস্ত সুবিধা ও অসুবিধা রয়েছে সবগুলো সম্পর্কে জানা অবশ্যই দরকার। কেননা না হলে পরবর্তীতে আবার অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে বলে আমার মনে হয়।

সুবিধা সমূহ

  • আপনি কোন ব্যক্তির সাথে কত বিটকয়েন কিংবা কত সাতোশি লেনদেন করেছেন সেগুলো আপনি এবং তিনি ছাড়া আর তৃতীয় ব্যক্তি কেউ জানতে পারবে না।
  • আপনার যে ট্রানজেকশন হিস্ট্রি যেটা রয়েছে সেগুলো কেউ চাইলে ট্র্যাক করতে পারবে না।
  • সবচেয়ে যে সুবিধাটা রয়েছে সেটা হচ্ছে এখানে লেনদেনের ক্ষেত্রে কোনো প্রকার চার্জ কাটা হয় না।

অসুবিধা সমূহ

  • বাংলাদেশ কিংবা এমন অনেক কান্ট্রি রয়েছে যেখানে বিটকয়েন এখনো পর্যন্ত বৈধ করা হয়নি
  • বিটকয়েনের মূল্য সব সময় একই থাকে না বরং একদিন অন্যরকম অপর দিন ভিন্নরকম হয়ে যায়।
  • আপনি যদি অনলাইনে মাধ্যমে কাউকে পেমেন্ট করেন কিংবা কোন একটা পণ্য ক্রয় করেন বিটকয়েনের মাধ্যমে তাহলে আপনি যদি সেই পণ্যটা হাতে তাহলে আপনার আর কোন কিছু করার থাকবে না।
  • যেহেতু এই কারেন্সিটি কোন প্রতিষ্ঠান কিংবা কোন কোম্পানির আন্ডারে পরিচালিত হয় না তাই এখানে লেনদেন করা অনেক ঝুঁকিপূর্ণ একটি কাজ।

বিটকয়েনের ইতিহাস কি?

২০০৮ সালের দিকে সর্বপ্রথম সাতোশি নাকামাতো নামে এক ব্যক্তি কিংবা একটি দল এই কারেন্সিটি লঞ্চ করে। সেখানেই মূলত তারা কিংবা তিনি তাদের এক ওয়েবসাইটে বিটকয়েন কিভাবে কাজ করে এটা মূলত কি সবগুলো বিস্তারিত ভাবে বর্ণনা করেছিল।

সর্ব প্রথম যখন বিটকয়েন লঞ্চ করেছিল তখন এর দাম ছিল অনেকটাই কম। কিন্তু ২০১৩ সালের পর থেকেই বিটকয়েনের দাম বেড়েই চলতেছে। বলা চলে প্রথম দিকে যে সমস্ত লোকেরা বিটকয়েনের মধ্যে ইনভেস্ট করেছিল তারা অনেক কোটিপতি হয়ে গেছে।

আরো পড়ুনঃ ফ্রী ফায়ার এডভান্স সার্ভার রেজিস্ট্রেশন | free fire advance server registration

বাংলাদেশে কি বিটকয়েন অবৈধ?

আমরা এই বিটকয়েন সম্পর্কে জানার পরে অনেকের মনে প্রশ্ন জাগতে পারে আমাদের দেশের মধ্যে বিটকয়েন নামে যে কারেন্সিটি রয়েছে সেটা বৈধ কিনা। সেই প্রশ্নের উত্তর হচ্ছে না অর্থাৎ অবৈধ।

আপনি যদি বাংলাদেশের মধ্যে বসে বিটকয়েন নিয়ে লেনদেন করেন কিংবা বিটকয়েন মাইনিং করেন তাহলে পরবর্তীতে আপনার অনেক সমস্যা হতে পারে জেল জরিমানা পর্যন্ত হতে পারে।

বাংলাদেশের মধ্যে সর্বপ্রথম বিটকয়েন যখন অবৈধ করা হয়েছিল তখন ২০১৪ সাল ছিল। সর্বপ্রথম বাংলাদেশের মধ্যে ২০১৪ সালেই বিটকয়েন ক্রিপ্টো কারেন্সি অবৈধ ঘোষণা করা হয়।

অনেক ব্যক্তি আছেন যারা কিনা চুরি-চামারি করে সেই ঘোষণা কে অগ্রাহ্য করে বিটকয়েন মাইনিং করতেছেন কিংবা বিটকয়েন উপার্জন করতেছেন বা অনেকেই এই কারেন্সির মধ্যে ইনভেস্ট করতেছেন। বাংলাদেশে আইনগতভাবে কোন প্রকার এই কারেন্সির অনুমতি নেই।

আরো পড়ুনঃ রকেট কোড কত | rocket code koto

বিটকয়েন কিভাবে কাজ করে | ১ বিটকয়েন সমান কত টাকা

আমি আর্টিকেলের ওপরেই বর্ণনা করেছিলাম বিটকয়েন কি অর্থাৎ হচ্ছে এমন একটি ভার্চুয়াল মুদ্রা, যেটা কিনা মূলত অনলাইনের মধ্যেই ব্যবহৃত হয়ে থাকে। 

অর্থাৎ অনলাইনের মাধ্যমে আপনি এই ভার্চুয়াল মুদ্রাটি ক্রয় করতে পারবেন এবং বিক্রয় করতে পারবেন কিনা মূলত বিটকয়েন মাইনিং বলে থাকে। তবে বিটকয়েন মাইনিং সম্পর্কে অনেক বিস্তারিত সংজ্ঞা রয়েছে যেটা আপনারা google করলেই পেয়ে যেতে পারেন।

তবে আমার জানামতে আপনি যদি বিটকয়েন ইনভেস্ট করেন তাহলে আপনার লস কিংবা লাভ দুইটা থেকে কোন একটা হতে পারে। যার মাধ্যমে আপনি অনেক কোম্পানি কিংবা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে পেমেন্ট করতে পারবেন।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url

Advertise

Advertise