মোবাইল রেজিস্ট্রেশন চেক।IMEI নাম্বার চেক করার নিয়ম।

আজকের এই আর্টিকেলটিতে আমরা জানবো মোবাইল রেজিস্ট্রেশন চেক করার নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত। ভাই আপনার হাতে টাকা স্মার্টফোনটি যদি বিটিআরসিতে রেজিস্ট্রেশন আছে কিনা চেক করতে চান তাহলে আর্টিকেলটি পড়তে থাকুন। এবং জেনেনিন কিভাবে আপনার হাতে থাকবে এ স্মার্টফোনটি রেজিস্ট্রেশন আছে কিনা চেক করবেন।

মোবাইল রেজিস্ট্রেশন চেক।IMEI নাম্বার চেক করার নিয়ম।

আমাদের বাংলাদেশে গত বছর অর্থাৎ একে জুলাই 2021 সালে ইকুইপমেন্ট আইডেন্টিটি রেজিস্টার চালু হয়েছে। যার ভিত্তিতে বাংলাদেশের প্রতিটি স্মার্ট ফোন ব্যবহৃত প্রতিটি ফোন এই ডাটাবেসে যুক্ত করা হবে। যার কারণেই কথোপকথন যেগুলো অবৈধ আনঅফিসিয়াল এবং বিদেশ থেকে অবৈধভাবে আমদানিকৃত প্রতিটি স্মার্টফোন বাংলাদেশের মধ্যে আর ব্যবহার করা যাবে না বলে ঘোষণা করা হয়েছে।

আরো জানুন অফিসিয়াল ফোন চেক করার সহজ উপায়

তাই এখন থেকে আমাদের উচিত সমস্ত আনঅফিসিয়াল এবং অবৈধ ফোন কেনা থেকে বিরত থাকা। অবশ্যই কোন একটা স্মার্ট ফোন ক্রয় করার আগে অবশ্যই সেটা অফিশিয়াল কিনা যাচাই করতে হবে। তো এখন অনেকেই চিন্তায় পড়ে গেছেন নিজের হাতে থাকা স্মার্টফোন নিয়ে। অর্থাৎ অনেকেই ভাবতেছেন এখন আমার হাতে থাকা স্মার্টফোনটা অফিসিয়াল কিনা কিভাবে যাচাই করব। তাহলে এখন আপনাদের চিন্তার কোন দরকার নেই কেননা এখন আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করব কিভাবে আপনার হাতে টাকা স্মার্টফোনটি অফিশিয়াল আনঅফিসিয়াল কিনা যাচাই করবেন।

প্রত্যেক ওই স্মার্টফোন যেগুলো অফিসিয়াল বা বিদেশ থেকে বৈধভাবে আমদানিকৃত সেগুলোর অবশ্যই IME এর ডাটা বিটিআরসিতে রয়েছে। যদি আপনার ফোনটি চেক করার পর বিটিআরসিতে পাওয়া না যায় তাহলে মনে করবেন আপনার ফোনটি অবৈধ বা আনঅফিসিয়াল। তো আপনি যদি কোন একটা স্মার্টফোনের সরাসরি বিদেশ থেকে নিয়ে নিন তাহলে সেটা হল অফিসিয়াল করা যাবে। তাই আমরা অন্য আরেকটি আর্টিকেলে জানানোর চেষ্টা করব কিভাবে মোবাইল ফোন রেজিস্ট্রেশন করতে হয়।

বিভিন্ন ওয়েবসাইট কাটাকাটি করলে দেখা যায় একটি স্মার্ট ফোন ক্রয় করার পর। সেই হ্যান্ডসেটটিতে যে সিমটি থাকবে সেই অনুযায়ী আপনার মোবাইল ফোন রেজিস্ট্রেশন হয়ে যাবে। আরো জানা যায় সেই হ্যান্ডসেটটিতে যে সিম দিয়ে বা যার এনআইডি কার্ডের সিম দিয়ে মোবাইল ফোনটি রেজিস্ট্রেশন হয়ে গেছে সেই সিম গুলো ব্যতীত স্মার্টফোনে আর কোন সিম ব্যবহার করা যাবে না। যার কারণে বাংলাদেশ থেকে মোবাইল চুরির হার কমে যাবে কেননা যে চুরি করবে সে অন্য কোন সিম চালাতে পারবে না সেই স্মার্টফোনে। কেননা সর্বপ্রথম যার এনআইডি কার্ড দিয়ে স্মার্টফোন কিংবা সিম রেজিস্ট্রেশন হয়েছে তার সিমগুলো ব্যতীত আর কারো সিম সেই স্মার্টফোনে চালাতে পারবে না।

See also  এসএসসি রেজাল্ট চেক ২০২৩ | SSC result দেখার নিয়ম 2023

আরো পড়ুনঃ জন্ম নিবন্ধন যাচাই। জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড

আইএমইআই/IMEI নাম্বার চেক করার নিয়ম

আপনি যদি আপনার ফোনটি অফিশিয়ালি কিনা বিটিআরসির ডাটাবেসে আছে কিনা চেক করতে চান তাহলে অবশ্যই আপনার ফোনের আইএমইআই/IMEI নাম্বার টি প্রয়োজন হবে। তো এখন অনেক ভাবতেছেন কিভাবে চেক করবো আমার ফোনের আইএমইআই/IMEI নাম্বার। তো তাহলে এখন জেনে নেয়া যাক কিভাবে যেকোনো মোবাইল ফোনের আইএমইআই/IMEI নাম্বার চেক করতে হয়।

তো আপনি যদি আপনার স্মার্টফোনের আই এম ই আই নাম্বার চেক করতে চান। তাহলে এখনি চলে যান আপনার ফোনের ডায়াল প্যাডে এবং ডায়াল করুন *#06# । এই কোডটি ডায়াল করার কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে চলে আসবে আপনার ফোনের আইএমইআই নাম্বার। তাহলে এখন বুঝতে পেরেছেন আশাকরি কিভাবে স্মার্ট ফোনের আইএমইআই নাম্বার চেক করতে হবে।

আরো পড়ুনঃ বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম।বিকাশ অ্যাপ ডাউনলোড। বিকাশ সম্পর্কে বিস্তারিত

মোবাইল রেজিস্ট্রেশন চেক

আপনি যদি আপনার হাতে থাকা স্মার্টফোন কিংবা কোন একটা নতুন বা পুরাতন স্মার্টফোন ক্রয় করার আগে। সেই স্মার্টফোনটি অফিশিয়াল আনঅফিসিয়াল কিনা চেক করতে চান। তাহলে নিচে দেওয়া স্টেপগুলো যদি খুব ভালোভাবে পড়ে এবং বুঝে চেক করেন। তাহলে আশা করি অবশ্যই জানতে পারবেন, আপনার হাতে থাকা স্মার্ট ফোন অফিশিয়াল কিংবা আনঅফিসিয়াল কিনা।

স্টেপ ১:- হাতে থাকে স্মার্ট ফোন অফিশিয়াল কিংবা আনঅফিসিয়াল কিনা চেক করার জন্য, সর্বপ্রথম আপনার ফোনের ম্যাসেজ অপশনে গিয়ে নতুন একটি মেসেজ লেখার অপশনে যেতে হবে।

স্টেপ ২:- তারপর আপনাকে মেসেজ অপশনে লিখতে হবে KYD এবং তার একটা স্পেস দিতে হবে।

স্টেপ ৩:- তারপরে আপনি উপরের আর্টিকেলটি পড়ে আপনার ফোনের যে ১৫ ডিজিটের আইএমইআই নাম্বার টি বের করেছিলেন সেটি বসাতে হবে। উদাহরণস্বরূপঃ KYD 123456789012346 

See also  চুল দ্রুত লম্বা ও ঘন কালো করার ঘরোয়া উপায়

স্টেপ ৪:- এবং সর্বশেষ আপনার তৈরীকৃত মেসেজটি (KYD 123456789012346) পাঠিয়ে দিতে হবে 16002 এই নাম্বারে।

আরো পড়ুনঃ ইউটিউবে (You Tube) নিজের ভিডিও নিজে বা বারবার দেখলে কি হতে পারে।

ফলাফলঃ আপনি যদি উপরের দেওয়া স্টেপ গুলো ভালোভাবে ফলো করেন তাহলে আপনাকে খুব দ্রুত তারা ফিরতি এসএমএস এর মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হবে আপনার ফোনটি অফিশিয়াল কিংবা আনঅফিসিয়াল কিনা। যদি অফিশিয়াল হয় তাহলে ফিরতি এসএমএস আসবে :- ডিভাইসটির IMEI বিটিআরসি’র ডাটাবেইজে পাওয়া গেছে

আশা করি আজকের এই আর্টিকেলটি পড়ে আপনি জানতে পেরেছেন মোবাইল রেজিস্ট্রেশন চেক বা মোবাইল অফিশিয়াল আনঅফিসিয়াল কিনা চেক করার নিয়ম। তো আজকের এই আর্টিকেলটি যদি আপনার সামান্যটুকু উপকারে আসে তাহলে আপনার বন্ধু বা আত্মীয় স্বজনের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না। কেননা তারাও হয়তো আপনার কারণে একটা অজানা বিষয় জেনে যাবে।

আরো পড়ুনঃ আলাপ অ্যাপ কি?আলাপ অ্যাপ এর সুবিধা কি কি? আলাপ অ্যাপ কল রেট।