Advertise

জন্ম নিবন্ধন যাচাই। জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড

জন্ম নিবন্ধন যাচাই

হ্যালো বন্ধুরা আজকের এই আর্টিকেল আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করব জন্ম নিবন্ধন সম্পর্কে বিস্তারিত অর্থাৎ জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার নিয়ম, জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড করার নিয়ম ইত্যাদি জন্ম নিবন্ধন সম্পর্কে আরও বিস্তারিত। তাই আপনি যদি জন্ম নিবন্ধন সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চান জন্ম নিবন্ধন তথ্য যাচাই অনলাইন সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চান তাহলে আর্টিকেল শেষ পর্যন্ত করতে পারেন। কেননা আজকেরে আর্টিকেলে আমি জন্ম নিবন্ধন সম্পর্কে সব কিছু বলার চেষ্টা করবো ইনশাআল্লাহ। তাহলে শুরু করা যাক।

আপনি যদি এই আর্টিকেলটি পড়েন তাহলে অনলাইন জন্ম নিবন্ধন যাচাই অনলাইন জন্ম নিবন্ধন কপি ডাউনলোড এর ক্ষেত্রে আপনার অনেক উপকারে আসবে। তো এখন আমরা জানবো নাম ও জন্ম তারিখ দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার পদ্ধতি।

আরো পড়ুনঃ রমজান কত তারিখে শুরু হবে ২০২২।

নাম ও জন্ম নিবন্ধন দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই।

আপনি যদি ভেবে থাকেন শুধুমাত্র নাম দিয়ে আপনার জন্ম নিবন্ধন যাচাই করবেন তাহলে আপনি ভুল ভাবছেন। কেননা শুধুমাত্র নাম দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করা যায়না কেননা একই নাম অনেকজনের হয়ে থাকে। তো আপনি যদি অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন চেক করতে চান তাহলে অবশ্যই জন্ম তারিখ এবং জন্ম নিবন্ধন নাম্বার দিয়ে জন্ম তথ্য যাচাই করতে পারবেন বা online birth check করতে পারবেন। তো আপনি যদি আপনার জন্ম তারিখ ও জন্ম নিবন্ধন নাম্বার দিন জন্ম নিবন্ধন অনলাইন যাচাই করতে চান তাহলে এখানে ক্লিক করুন।

এখানে ক্লিক করার পর প্রশ্নের সামনে একটা পেজ ওপেন হবে যেখানে আপনি দুটি ঘর দেখতে পাবেন। প্রথম ঘরে লেখা থাকবে birth registration number তো এখানে আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন রেজিস্ট্রেশন নাম্বার টি বসাবেন। দ্বিতীয় ঘরে লেখা থাকবে date of birth তো এই ঘরে আপনি আপনার সঠিক জন্ম তারিখটি বসাবেন যেটি আপনার জন্ম নিবন্ধনে আছে। তারপর সর্বশেষ আপনি নিজে একটি ঘর দেখতে পাবেন যেটাতে যোগ বিয়োগ এর মাধ্যমে ভেরিফিকেশন যাচাই করা হবে। তো এখানে আপনি যোগ অথবা বিয়োগের সঠিক যোগফল অথবা বিয়োগফলটি বসিয়ে search বাটনে চাপ দিবেন। তখন আপনার সামনে আপনার অনলাইন জন্ম নিবন্ধনটি চলে আসবে যদি অনলাইনে থাকে।

আরো পড়ুনঃ বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম।বিকাশ অ্যাপ ডাউনলোড। বিকাশ সম্পর্কে বিস্তারিত

যদি আপনার জন্ম নিবন্ধন তথ্যটি অনলাইনের মধ্যে আপনি ঘরে বসেই দেখতে চান তাহলে খুব সহজেই দেখতে পারবেন। এটি বাংলাদেশের প্রত্যেকটি নাগরিকের জন্য প্রযোজ্য অর্থাৎ বাংলাদেশের প্রত্যেকটি নাগরিকের সঠিক জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে থাকে। তাই আপনি যদি অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে চান তাহলে অবশ্যই আপনার জন্ম নিবন্ধনের 17 ডিজিটের রেজিস্ট্রেশন নাম্বারটা লাগবে এবং অবশ্যই সঠিক জন্ম তারিখটি লাগবে। যদি আপনার জন্ম নিবন্ধন নাম্বার 16 ডিজিটের হয়ে থাকে তাহলে এটিকে 17 ডিজিটের করতে হবে। কিভাবে 16 ডিজিট থেকে 17 ডিজিট করবেন এ বিষয়ে সম্পর্কে জানতে আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়ুন।

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা কিনা অনেক বয়স্ক তাদের জন্ম সনদ গুলো আগেকার হওয়ার কারণে সেগুলো হাতে লেখা হয়ে থাকে। অর্থাৎ কম্পিউটারের চাপা না হয়ে শুধুমাত্র হাতে লেখা কলম দিয়ে হয়। এবং যখন এই হাতের লেখা জন্ম সনদ অনলাইনে বাংলাদেশ সরকারি ওয়েবসাইটের ডাটাবেজে আনা হয় তখন থেকে এই জন্মনিবন্ধন সনদ কে ডিজিটাল সনদ বলা হয়ে থাকে। অর্থাৎ digital birth registration certificate (ডিজিটাল বার্থ রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেট) বলা হয়। আমাদের মাতৃভাষা বাংলা ভাষায় এটাকে অনলাইন জন্ম নিবন্ধন সনদ বলা হয়।

আরো পড়ুনঃ ইউটিউবে (You Tube) নিজের ভিডিও নিজে বা বারবার দেখলে কি হতে পারে

অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার পদ্ধতি। jonmo nibondhon online check.

Birth registration online check বা জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে আছে কিনা কিভাবে চেক করব এটা নিয়ে অনেকের প্রশ্ন জাগে। আবার অনেকেই গুগলে গিয়ে সার্চ করে অনলাইনে জন্ম সনদ যাচাই করার নিয়ম কিন্তু সচরাচর অনেকেই সঠিক উত্তর খুঁজে পায়না। তো আজকে আমি আপনাদের থেকে এ সমস্যা দূর করে দেবো ইনশাআল্লাহ। বলতে গেলে অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন সনদ যাচাই তথ্য যাচাই অনেক সহজ। অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন তথ্য যাচাই করার জন্য ল্যাপটপ কম্পিউটার কিংবা একটা স্মার্টফোন দিয়েই সম্ভব। শুধুমাত্র আপনার ল্যাপটপ কম্পিউটার কিংবা স্মার্টফোন ইন্টারনেট কানেকশন থাকলেই হল।

আপনি যদি জন্ম নিবন্ধন তথ্য যাচাই বা জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে চান তাহলে নিচে দেওয়া ধাপগুলো অনুসরণ করুন। আপনি যদি এই ধাপ গুলো ভালোভাবে পড়ে ভাল ভাবে অনুসরণ করেন তাহলে খুব সহজে আপনার জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ আলাপ অ্যাপ কি?আলাপ অ্যাপ এর সুবিধা কি কি? আলাপ অ্যাপ কল রেট।

1. জন্ম নিবন্ধন তথ্য যাচাই সরকারি ওয়েবসাইট ভিজিট করা। অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন তথ্য যাচাই করতে আপনার মোবাইল বা কম্পিউটার ব্রাউজার এ যেতে হবে। আপনি ইচ্ছে করলে গুগল ক্রোম ব্রাউজার ওপেন করতে পারেন ব্রাউজার এর মধ্যে আমার এটি সবচেয়ে বেস্ট মনে হয়। অথবা সরকারি ওয়েবসাইট ভিজিট করতে এখানে ক্লিক করুন। আপনাকে আর কষ্ট করে ব্রাউজার এ গিয়ে ভিজিট করতে হবে না সরাসরি এখানে ক্লিক করলে আপনি জন্ম নিবন্ধন তথ্য যাচাই সরকারি ওয়েবসাইটে চলে যেতে পারবেন।

আপনি যখন এখানে ক্লিক করবেন কিংবা কোন একটা ব্রাউজার এ গিয়ে সার্চ করবেন everify.bdris.gov.bd তখন আপনার সামনে একটা নিচের ছবির মত পেজ ওপেন হবে।তখন আপনার 17 ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন রেজিস্ট্রেশন নাম্বার এবং সঠিক জন্ম তারিখ আপনার অনলাইন জন্ম নিবন্ধন চেক করতে পারবেন।

জন্ম নিবন্ধন যাচাই

2. জন্ম নিবন্ধন রেজিস্ট্রেশন নাম্বার ও জন্ম তারিখটি লিখুন। অনলাইন জন্ম জন্ম তথ্য যাচাই করার জন্য দ্বিতীয় ধাপটি হচ্ছে আপনাকে আপনার সঠিক জন্ম নিবন্ধন রেজিস্ট্রেশন নাম্বার এবং সঠিক জন্ম তারিখটি দিতে হবে। যেমনঃ birth registration number এর জায়গায় 12345678901234567 এবং Date of birth এর জায়গায় প্রথমে সাল তারপর মাস এবং তার পর দিন দিতে হবে।

আরো পড়ুনঃ ফেসবুক আইডি নষ্ট করার নিয়ম।

3. ক্যাপচা পূরণ করা। আপনিতো সরকার ওয়েবসাইটটি ব্যবহার করতেছেন কিন্তু আপনি কি মানুষ নাকি রোবট সেটি চেক করার জন্য আপনাকে একটা ক্যাপচা পূরণ করতে হবে। সেখানে একটি আপনাকে গাণিতিক প্রশ্ন জিজ্ঞেস করা হবে যেমনঃ 10+15= তো এই প্রশ্নের উত্তরটি আপনি নিচের একটি বক্সে লিখে যখন সার্চ (Search) বাটনে চাপ দেবেন। তখন আপনার সামনে আপনার জন্ম নিবন্ধন অনলাইন সনদটি চলে আসবে।

আশাকরি এ পর্যন্ত পড়ে আপনার জন্ম নিবন্ধন অনলাইন যাচাই করতে পেরেছেন। আপনি ইচ্ছে করলে এই অনলাইন জন্ম নিবন্ধন টি ডাউনলোড করে প্রিন্ট করে নিতে পারেন। বিভিন্ন ক্ষেত্রে অনলাইন জন্ম নিবন্ধন প্রয়োজন পড়ে তাই প্রিন্ট করে রাখা ভালো।

নাম দিয়ে জন্ম নিবন্ধন তথ্য যাচাই।

Birth certificate online verification-আপনি যদি নাম দিয়ে অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন বের করতে চান বা তথ্য যাচাই করতে চান তাহলে আপনি ভুল ভাবছেন। কেননা শুধুমাত্র নাম দিয়ে অনলাইন জন্ম নিবন্ধন বের করা সম্ভব নয়। তাছাড়া আপনি যদি নাম দিয়ে জন্ম নিবন্ধন তথ্য যাচাই করতে চান তাহলে অবশ্যই ইউনিয়ন পরিষদ পৌরসভা ইত্যাদিতে গিয়ে চেক করে নিতে পারে। এছাড়া আর কোন উপায় নেই নাম দিয়ে জন্ম নিবন্ধন চেক করার জন্য।

আরো পড়ুনঃ কত রমজানে মক্কা বিজয় হয়েছিল।খালিদ ইবনে ওয়ালিদের কৈফিয়ত গ্রহণ।

তাছাড়া আপনার জন্ম নিবন্ধন ফি যদি হারিয়ে যায় তাহলেও আপনার সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদ কিংবা পৌরসভাতে গিয়ে আপনার জন্ম নিবন্ধনটি যাচাই করে নিতে পারেন। আশাকরি বুঝতে পেরেছেন।

ডিজিটাল জন্ম নিবন্ধন তথ্য যাচাই। Online birth certificate check.

আমাদের অনেক সময় বিভিন্ন প্রয়োজনে বা কারনে আমাদের জন্ম নিবন্ধন টি অনলাইনে বা ডিজিটাল কিনা চেক করার প্রয়োজন পড়ে(online birth certificate check)। আমাদের অনেক সময় জন্ম নিবন্ধন তথ্য সঠিক কিনা বা ডিজিটাল কিনা চেক করার প্রয়োজন পড়ে তাই আপনি উপরের পদ্ধতি অবলম্বন করে আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ টি ডাউনলোড করে রাখতে পারেন এ ক্ষেত্রে আপনার অনেক উপকারে আসবে।

তবে আপনার জন্মনিবন্ধনের সঠিক তথ্য দেওয়ার পরেও যদি no record লেখা আসে তাহলে হয়তো আপনার জন্ম নিবন্ধন টি অন্য কোনো কারণে আসছে না।তার মধ্যে অনেক কারণ থাকতে পারে যেমনঃ রেজিস্ট্রেশন নাম্বার 16 ডিজিটের হওয়া এবং ভুলে জন্ম নিবন্ধন টি অফলাইন থেকে অনলাইন ডাটাবেজে রেকর্ড না করা ইত্যাদি।

আরো পড়ুনঃ কিভাবে ssc রেজাল্ট দেখবো। সকল বোর্ডের এসএসসি রেজাল্ট দেখার নিয়ম।

16 ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার নিয়ম।

আপনি যদি 16 ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন রেজিস্ট্রেশন নাম্বার দিয়ে জন্ম তথ্য সনদ যাচাই করতে চান তাহলে খুব সহজেই একটি পদ্ধতি অবলম্বন কর যাচাই করতে পারবেন। তার জন্য আপনাকে আপনার জন্ম নিবন্ধনের যে 16 ডিজিটের নাম্বারটি তার সর্বশেষ চার ডিজিটের আগে একটি শূন্য (0) যোগ করতে হবে।

আগের কার সময়ে যে জন্ম নিবন্ধন গুলো ছিল অর্থাৎ হাতের লেখা যে জন্ম নিবন্ধন গুলো ছিল। সেগুলো সাধারনত 12 থেকে 13 ডিজিটের মধ্যে ছিল কিন্তু এখন আমরা সকলেই জানি জনগন দিন দিন দেশের মধ্যে বৃদ্ধি হচ্ছে। তাই জনগণের দিকে লক্ষ্য করি এখন 12-13 ডিজিটের সংখ্যাটিকে 17 ডিজিট করা হয়েছে। তাই আপনার জন্ম নিবন্ধনের রেজিস্ট্রেশন নাম্বারটিও যদি 16 ডিজিট 12-13 ডিজিটের হয়ে থাকে তাহলে সেটা ইউনিয়ন পরিষদ কিংবা পৌরসভাতে গিয়ে ঠিক করে নিতে পারেন।

আরো পড়ুনঃ অনলাইনে ট্রেনের টিকেট কাটার নিয়ম।ট্রেনের টিকেট কাটার সময়।ট্রেনের টিকেট ফেরত দেয়ার নিয়ম।

অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন তথ্য না পাওয়ার কারণ।

হতে পারে আপনার জন্ম 1 তারিখ 1 মাস 2001 সালের পূর্বে এবং আপনার জন্ম নিবন্ধন টি হাতের লেখা কিন্তু এখনো অনলাইন ডাটাবেসে অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি।

হতে পারে আপনার জন্ম নিবন্ধন রেজিস্ট্রেশন নম্বর জেটির হয়েছে সেটাতে ভুল আছে কিংবা আপনার জন্ম তারিখে ভুল আছে। অর্থাৎ কোন ভুলের কারণে আপনার রেজিস্ট্রেশন নাম্বার এর মধ্যে গরমিল হয়ে গেছে।

আপনি যদি এসব সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে চান অর্থাৎ আপনার জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে পেতে চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই নতুনভাবে আরেকটি জন্ম নিবন্ধন রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। আর আপনি জন্ম নিবন্ধন নতুনভাবে আবেদন করার উপায় সম্পর্কে জানার জন্য গুগোল কিংবা ইউটিউবে সার্চ করতে পারেন। আশা করা যায় আপনার সমস্যাটি এক কার্যদিবসের মধ্যে সমাধান হয়ে যাবে।

জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড করার নিয়ম।

অবশ্যই আপনি একজন তো জানতে পেরেছেন কিভাবে একটি জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে যাচাই বাছাই করতে হয়। আপনি যদি উপরের বিষয়গুলো অবলম্বন করে আপনার জন্ম নিবন্ধন চেক করে অনলাইনে খুঁজে পান।

তাহলে বুঝবেন আপনার জন্ম নিবন্ধনটি অনলাইন এর মধ্যে বিদ্যমান রয়েছে। এখন আপনি ইচ্ছে করলে আপনার ইউনিয়ন পরিষদ, পৌরসভা কিংবা সিটি কর্পোরেশন থেকে আপনার ডিজিটাল বার্থ সার্টিফিকেট সংগ্রহ করতে পারবেন।

জন্ম নিবন্ধন চেক করার পর যখন আপনার জন্ম নিবন্ধন টি আপনার সামনে চলে আসবে তখন সেটা খুব সহজেই প্রিন্ট করে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। জন্ম নিবন্ধন টি আপনার সামনে আসার পর কম্পিউটার থেকে প্রিন্ট কমান্ড দিয়ে পিডিএফ সিলেট করি পিডিএফ ফাইল হিসেবে ডাউনলোড কিংবা প্রিন্ট করে নিতে পারবেন।

আপনার কম্পিউটারে যদি প্রিন্ট টু পিডিএফ ফাইল না থাকে তাহলে দেখুন কিভাবে কম্পিউটারে ডকুমেন্ট থেকে পিডিএফ ফাইল করা যায়। তাছাড়া আপনার যদি প্রিন্টার মেশিন থাকে তাহলে আপনার যাচাইকৃত জন্ম নিবন্ধন ভবিষ্যতের জন্য সংরক্ষণ করে রাখতে পারেন। এছাড়া আর কোন উপায় অবলম্বন করে আপনি জন্ম নিবন্ধন টি ডাউনলোড করতে পারবেন না। অবশ্যই আমি মনে করি আপনার অনলাইন জন্ম নিবন্ধন টি একেবারে প্রিন্ট করে নেওয়াই ভালো কেননা হয়তো এটি আপনার ভবিষ্যতে অনেক উপকারে আসবে। এমনকি অনেক সময় অনলাইন জন্ম নিবন্ধন ছাড়া কোন কোন কাজ করা সম্ভব হয় না।

আরো পড়ুনঃ মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট।

জন্ম নিবন্ধনে তথ্য ভুল থাকলে সংশোধন করার নিয়ম।

আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদটি অনলাইনে যাচাইয়ের পর যদি সেখানে কোন ভুল বিদ্যমান থাকে বা আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন এর মধ্যে কোন ভুল দেখতে পান তাহলে সেটা অতি সত্ত্বর সংশোধন করে নেওয়া জরুরী। কারণ হয়তো আপনার জন্ম নিবন্ধনে ভুল থাকার কারণে অনেক সময় অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে।

বর্তমানে বলা যায় জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করা তেমন কোনো কঠিন কাজ নয় খুব সহজেই আপনার জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করে নিতে পারবেন। এর জন্য আপনি ইউনিয়ন পরিষদ পৌরসভা কিংবা সিটি কর্পোরেশনে গিয়ে জন্ম সনদটি সংশোধন করে নিতে পারেন। আর যদি আপনি অনলাইনে জন্ম সনদ সংশোধন করেন আবেদন করতে চান তাহলে ইউটিউব কিংবা গুগোল ইত্যাদি দিয়ে খোঁজ করে নিতে পারেন।

আরো পড়ুনঃ কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল খুলবো। ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন যাচাই।

আপনি যদি আপনার জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে সংশোধন করার আবেদন করে থাকেন তাহলে অবশ্যই আবেদন পত্রের কপি এবং প্রয়োজনীয় কাগজপত্র অবশ্যই ইউনিয়ন পরিষদ পৌরসভা কিংবা সিটি কর্পোরেশনের জমা দিতে হবে। অবশ্যই তারা প্রয়োজনীয় কাগজপত্র চেক করার পর যদি সবগুলো ঠিক থাকে আপনার আবেদনটি গ্রহণ করবে। যদি সবগুলো ঠিক থাকে তাহলে অবশ্যই আপনার আবেদনটি গ্রহণ করে ঠিক করে দেওয়ার চেষ্টা করবে।

আপনি যে আবেদনটি করেছেন সেটা তারা সংশোধন করেছে কিনা তা কিভাবে অনলাইনে চেক করবেন সেটা কি জানেন? আর আপনি যদি অনলাইনে সংশোধন হয়েছে কিনা চেক করতে না জানেন তাহলে পড়ে পড়ে জেনে নিন।

আপনি যদি আপনার আবেদনকৃত জন্ম নিবন্ধন সংশোধন হয়েছে কিনা চেক করতে চান তাহলে আগের মতোই সম্পূর্ণ স্টেপ পূরণ করে চেক করতে পারবেন। অর্থাৎ everify.bdris.gov.bd এই ওয়েব সাইটে যাওয়ার পর সেখানে আপনার জন্ম নিবন্ধন রেজিস্ট্রেশন নাম্বার এবং জন্ম তারিখ দিয়ে যখন ক্যাপচা পুরন করে আগের মত সার্চ বাটনে চাপ দিবেন তখন আপনার সামনে জন্ম নিবন্ধন নিয়ে চলে আসবে। তো আপনি সেখানে দেখতে পাবেন আপনার জন্ম নিবন্ধন সংশোধন হয়েছে কিনা যদি সংশোধন না হয় তাহলে আগের মত দেখাবে যদি সংশোধন হয় তাহলে সংশোধন হয়ে নতুনভাবে দেখাবে।

আরো পড়ুনঃ নগদ একাউন্ট বন্ধ করার পদ্ধতি।

জন্ম নিবন্ধন সংক্রান্ত বিভিন্ন প্রশ্ন উত্তর।

অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার নিয়ম কি?

জন্ম নিবন্ধন অনলাইনের মাধ্যমে চেক করার জন্য everify.bdris.gov.bd এই ওয়েব সাইটে যাওয়ার পর আপনার সঠিক জন্ম নিবন্ধন রেজিস্ট্রেশন নাম্বার এবং সঠিক জন্ম তারিখ দিয়ে সার্চ বাটনে ক্লিক করলেই খুব সহজেই আপনার জন্মদিন অনলাইন আছে কিনা যাচাই করতে পারবে। আচ্ছা করি বুঝতে পেরেছেন কিভাবে অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে হয়।

অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন কিভাবে দেখব?

অনলাইনে আপনার জন্ম নিবন্ধন টি দেখার জন্য everify.bdris.gov.bd এই ওয়েবসাইটে যাবার পর। আপনার জন্ম নিবন্ধন নম্বর এবং সঠিক জন্ম তারিখ দিয়ে সার্চ বাটনে ক্লিক করলে মাত্র কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই আপনার জন্ম নিবন্ধন দেখতে পারবেন। আশা করি বুঝতে পেরেছেন কিভাবে অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন দেখতে হয়।

জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে থাকলে করণীয় কি?

আপনার জন্ম নিবন্ধন যদি বাংলাদেশে সরকারি ওয়েবসাইটে ডাটাবেজে পাওয়া না যায় তাহলে আপনাকে খুব দ্রুত এই সমস্যার সমাধান করে ফেলতে হবে। তার জন্য আপনি আপনার ইউনিয়ন পরিষদ, সিটি কর্পোরেশন কিংবা পৌরসভাতে গিয়ে আপনার সমস্যাটি জানাতে পারেন। তবে আপনাকে এ কাজটি খুব দ্রুত করে নেওয়াই ভালো। কেননা হয়তো আপনার জন্ম নিবন্ধন টি সরকারি ওয়েবসাইট এর ডাটাবেজে না থাকার কারণে অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে। আর এরপরেও যদি আপনার সমস্যা সমাধান না হয় তাহলে নতুন একটি জন্ম নিবন্ধনের আবেদন করতে হবে।

আরো পড়ুনঃ কিভাবে জন্ম নিবন্ধন অনলাইন করা যায়।জন্ম নিবন্ধন অনলাইন করার নিয়ম।

জন্ম নিবন্ধন ভুল হলে করণীয় কি?

কোন কারণে আপনার জন্ম নিবন্ধনটি যদি ভুল হয় বা আপনি দেখলেন আপনার জন্ম নিবন্ধনটি অনলাইনে চেক করার পর ভুল দেখাচ্ছে তাহলে আপনি সেটা সংশোধন করে নিতে পারবেন। তাছাড়া আর একটা মজার বিষয় হচ্ছে জন্ম সংশোধনের মাধ্যমে আপনি আপনার নাম পরিবর্তন করে ফেলতে পারবেন এবং আরও অনেক কিছু পরিবর্তন করতে পারবেন আশাকরি।

জন্ম নিবন্ধন আবেদন পত্র প্রিন্ট।

আপনি যদি আপনার অনলাইন জন্ম নিবন্ধন টি ডাউনলোড করে প্রিন্ট করতে চান তাহলে খুব সহজেই এটি করতে পারবেন। তার জন্য আপনি উপরের পদ্ধতিগুলোর অবলম্বন করে আপনার জন্ম নিবন্ধন টি দেখার পর সেখান থেকে খুব সহজেই প্রিন্ট করে নিতে পারবেন।জন্ম নিবন্ধন আবেদন পত্র প্রিন্ট।

জন্ম তারিখ দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই।

খুবই দুঃখের সাথে বলতে হচ্ছে যে আপনি শুধুমাত্র জন্ম তারিখ দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে পারবেন না। আপনি যদি জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে চান তাহলে অবশ্যই আপনার জন্ম নিবন্ধন রেজিস্ট্রেশন নাম্বারটা লাগবে এবং সাথে জন্ম তারিখটিও  লাগবে। কেননা শুধুমাত্র যদি জন্ম তারিখ দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করা যেতে পারতো তাহলে গরমিল হয়ে যেতো। কেননা একই দিনে জন্ম হয়েছে এমন অনেক লোক আছে।

আরো পড়ুনঃ রবি নাম্বার কিভাবে দেখে।

জন্ম নিবন্ধন হেল্পলাইন।

আমাদের জন্য একটা সুবিধার কথা হচ্ছে আপনি যদি জন্ম নিবন্ধন সংক্রান্ত কোন কিছু বিষয় জানতে হয় তাহলে খুব সহজেই জন্ম নিবন্ধন হেল্প লাইনে কল করে জানতে পারবেন। তার জন্য আপনাকে তাদের নাম্বারে কল করতে হবে এখানে সংক্ষিপ্ত তার কারণে এই নাম্বার গুলো দেওয়া হয়নি। কিন্তু আপনি যদি এখানে ক্লিক করেন তাহলে জন্ম নিবন্ধন হেল্পলাইন নাম্বার এবং হেল্পলাইন সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানতে পারবেন।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url