চুল দ্রুত লম্বা ও ঘন কালো করার ঘরোয়া উপায়

চুল দ্রুত লম্বা ও ঘন কালো করার ঘরোয়া উপায়।অনেকে গুগোল কিংবা ইউটিউবে সার্চ করে থাকে মেয়েদের চুল ঘন করার উপায়, সামনের চুল ঘন করার উপায় ইত্যাদি আরও নানা বিষয় সম্পর্কে। তাই আপনি যদি আপনার চুল গন করতে চান কিংবা মেয়েদের চুল ঘন করতে চান সে ক্ষেত্রে অবশ্যই শেষ পর্যন্ত পড়তে পারেন। কেন আর্টিকেলটি মূলত তাদের জন্যই লেখা হয়েছে। চলুন তাহলে আর কথা না বাড়িয়ে শুরু করা যাক

চুল দ্রুত লম্বা ও ঘন কালো করার ঘরোয়া উপায়

আমরা সকলেই জানি চুল হচ্ছে সকল নারী এবং পুরুষের এক অলংকার। যুগে যুগে কবি সাহিত্যিকরা চুল সম্পর্কে অনেক কিছু লেখালেখি করেছেন। কবি-সাহিত্যিকরা রেখেছেন কাল রেশমি চুলের অনেক বড় বড় প্রেম কবিতা। বলতে গেলে শুধু বাস্তব জীবনেই নয় বরং আমরা ছোট থেকে যে সমস্ত রূপকথার গল্প শুনেছি সেখানেই চুলকে বিশেষভাবে স্থান দেওয়া হয়েছে।

আরো পড়ুনঃ ঘরে বসে মোবাইলে আয় 2022।

রাজপুত্র হোক কিংবা রাজকন্যা সকলের প্রয়োজন কালো এবং ঘন ঘন চুল। তাই আমাদেরকে অবশ্যই চুলের প্রতি যত্নশীল হতে হবে। দেশব্যাপী একটি গবেষণায় দেখা গিয়েছে প্রায় প্রতি বছর তিন গুণের বেশি চুলের সমস্যার রোগী দেখা গেছে। আমরা ব্যস্ত হয়ে গেছি অপরিচ্ছন্ন আবহাওয়ার আমাদের চুলকে খাপ খাইয়ে নেওয়ার কিন্তু আমরা সকলেই চুলের যত্ন নেওয়া থেকে বিরত আছি। তাই আপনি যদি আজকের এই আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত বলেন তাহলে আশা করা যায় আপনি চুল বিষয়ক সমস্ত কিছু জানতে পারবেন। চুলকে কিভাবে যত্ন করতে হয়, মেয়েদের চুল ঘন করার উপায়, সামনের চুল ঘন করার উপায়, সামনের চুল লম্বা করার উপায় ইত্যাদি সম্পর্কে আরও বিস্তারিত।

আরো পড়ুনঃ চিকন হওয়ার উপায় কি? দ্রুত চিকন হওয়ার উপায় | চিকন হওয়ার ঔষধ

চুল কাকে বলে

মূলত চুল হচ্ছে এমন এক নির্দেশক বৈশিষ্ট্য যেটা কিনে স্তন্যপায়ী প্রাণীদের থাকে। আমাদের যে চুল রয়েছে সেই চুলের প্রধান উপাদান হচ্ছে ক্যারোটিন। আমাদের মাঝে একটা ভুল ধারণা রয়েছে সেটি হচ্ছে প্রাণীভেদে সব ধরনের প্রোটিন তন্তু কে চুল হিসাবে গণনা করা। কেননা সাধারণত লোম কিংবা চুল রয়েছে এমন প্রাণী যেগুলো স্তন্যপায়ী। সাধারণত লোম দেখা যায় বিভিন্ন ছাগল এবং বেড়ার শরীরে। এবং পোকামাকড়ের শরীরে যে গুলো রয়েছে সেগুলো হচ্ছে রুয়া। তাই আমাদেরকে অবশ্যই পোকামাকড় ইত্যাদির শরীরে যে রোঁয়া গুলো রয়েছে সেগুলো কে যদি আমরা চুল হিসেবে বিবেচনা করি সে ক্ষেত্রে এটা একটা প্রচলিত ভুল ধারণা হিসেবে গণ্য হবে।

See also  জন্ম নিবন্ধন অনলাইন করার নিয়ম 2024। jonmo nibondhon online korar niom 2024

আরো পড়ুনঃ রকেট একাউন্ট চেক করার কোড 2022।

ছেলে এবং মেয়েদের মধ্যে চুলের পার্থক্য কি

আমরা সকলেই জানি বিশ্বের সর্ববৃহৎ মার্কিন যে প্রশ্ন-উত্তরের ওয়েবসাইট রয়েছে অর্থাৎ যেটাকে আমরা Quora হিসেবে চিনি। এই Quora প্রশ্ন-উত্তর ওয়েবসাইটটিতে অসংখ্যবার ছেলে এবং মেয়েদের চুলের পার্থক্য কি এটা নিয়েও অনেকে প্রশ্ন করেছে। এবং আমাদের মাঝে অনেক চিন্তা ধারণা রয়েছে আসলে কে ছেলে এবং মেয়েদের চুলের মধ্যে পার্থক্য রয়েছে। আপনি জানলে অবাক হবেন জিনগত দিক থেকে আসলে ছেলে এবং মেয়েদের চুলের মধ্যে কোন প্রকার পার্থক্য পাওয়া যায় না।

যেহেতু মেয়েরা নিজেদের চুল লম্বা করে সেক্ষেত্রে অবশ্যই তাদের চুলের প্রতি একটু যত্নবান হওয়া উচিত। আপনারা চুল যাতে যত্নবান করে তুলবেন আপনি ততই আপনার চুল পরিষ্কার সুন্দর এবং আপনার নিজেকে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ মনে হবে। এবং আমাদের ছেলেদের চুল গুলো সাধারণত খাটো কিংবা মাঝারি সাইজের হয়ে থাকে তাই সাধারণত ছেলেদের চুল সুন্দর এবং পরিষ্কার হওয়া সত্ত্বেও তেমন কোনো সুন্দর দেখায় না।

আমরা সকলেই জানি মেয়েরা একটু তাদের চুলের প্রতি অনেক যত্ন তাই সাধারণত তাদের চুল স্বাস্থ্যসম্মত তাকে। কিন্তু ছেলেরা যেহেতু তেমন যত্নবান নয় তার চুলের প্রতি তাই সাধারণত ছেলেদের চুল থেকে স্বাস্থ্য চলে যায়। তাই আমাদের ছেলে এবং মেয়ে সকলের প্রতি চুলের যত্ন নেওয়া অনেক জরুরী কেননা আপনি যত আপনার চুলের যত্নশীল হবেন তত আপনার চুল সুন্দর এবং পরিষ্কার থাকবে। তাই আজকের এই আর্টিকেলটিতে আপনি আপনার চুলের কিভাবে যত্ন নিবেন এবং মেয়েদের চুল ঘন করার উপায় সম্পর্কে বর্ণনা করা হয়েছে।

আরো পড়ুনঃ মোটা হওয়ার ভিটামিন ক্যাপসুল।

চুল দ্রুত লম্বা ও ঘন কালো করার ঘরোয়া উপায়

সাধারণত প্রতিটি ব্যক্তির দিনের পর দিন চুল আস্তে আস্তে পাতলা হয়ে এটি সাধারণ একটি প্রক্রিয়া। কিন্তু বলতে গেলে এটা সবার কাছে একটি খারাপ লাগার বিষয় এবং বেদনাদায়ক বিষয়। অস্বাস্থ্যকর জীবনধারা, হরমোন, যত্ন না

নেওয়া, এলার্জি,পুষ্টির ঘাটতি এবং জেনেটিক কারণে সাধারণত আমাদের চুল পড়ে যায়। এবং আপনি যদি মেয়ে হয়ে থাকেন এবং মেয়েদের চুল ঘন করার উপায় সম্পর্কে জানতে চান সেক্ষেত্রে আজকে আমি আপনাদেরকে এমন পাঁচটি টিপস এবং সহজলভ্য উপায় শেয়ার করবো যেগুলো কিনা আপনার চুল ঘন এবং সুন্দর করতে সাহায্য করবে। সাধারণত এই পাঁচটি জিনিস আপনার হাতের নাগালেই সবসময় থাকে তাই আপনার এগুলো ব্যবহার করতে তেমন কোনো কষ্ট হবে না। তাহলে জেনে নেয়া যাক এমন পাঁচটি কার্যকরী ঘরোয়া উপায়ে যেগুলো ব্যবহার করে পাতলা চুল ঘন করা যায়।

See also  পাসপোর্ট দিয়ে কি বিকাশ একাউন্ট খোলা যায় | জন্ম নিবন্ধন দিয়ে কি বিকাশ একাউন্ট খোলা যায়

চুল দ্রুত লম্বা ও ঘন কালো করার 5টি ঘরোয়া উপায়

১. অ্যালোভেরা বা ঘৃতকুমারী

আপনি যদি আপনার চুলের জন্য ঘৃতকুমারীর সঠিক ব্যবহার করেন সেক্ষেত্রে আপনার পাতলা চুল ঘন করতে অনেক তর সাহায্য করবে। এর জন্য আপনি একটা এলোভেরা থেকে চামচ কিংবা চুরি দিয়ে কিছু জেল বের করে নিন। এখন আপনাকে জেল থেকে সুন্দর ভাবে এবং মসৃণ ভাবে পেস্ট করতে হবে। এখন আপনি যে জেলটা কে পেস্ট করেছেন সেটি আপনার মাথার এসকাপ এর মধ্যে ভালোভাবে দেওয়ার পর 10 থেকে 15 মিনিট অপেক্ষা করুন। এখন আপনাকে হালকা ঠাণ্ডা পানি দিয়ে আপনার চুল ধুয়ে ফেলতে হবে।

আপনি ইচ্ছে করলে এই ভাবেই সপ্তাহে দুই দিন ব্যবহার করতে পারেন এটা আপনার চুলের জন্য অনেক স্বাস্থ্যকর দিক হিসেবে বিবেচনা করতে পারেন। কেননা অ্যালোভেরার মধ্যে এমন এক শক্তি রয়েছে যেটা কিনা আপনার মাথার স্ক্যাপ এর মৃত কোষ জীবিত করতে সাহায্য করবে এবং আপনার চুলের গোড়া মজবুত করতে সাহায্য করবে এমনকি আপনার পাতলা চুল বৃদ্ধি করতে সাহায্য করবে। আপনার বাড়ির আশেপাশে কিংবা অন্য কোথাও যদি অ্যালোভেরা পাতা সংগ্রহ করতে না পারেন সে ক্ষেত্রে দোকান থেকে কোন একটা অ্যালোভেরা জেল কিনে নিতে পারেন।

আরো পড়ুনঃ মালয়েশিয়া ভিসা কবে খুলবে 2022।

২. ডিম

ডিম ব্যবহার করে আপনার পাতলা চুল ঘন করতে চান সে ক্ষেত্রে কোন একটি বাটিতে একটি ডিম নিন এবং সেইসাথে এক চামচ টেবিল অলিভ ওয়েল যুক্ত করুন। এবং এই দুটি জিনিস ভালোভাবে মিশ্রণ করার পর আপনার চুলের আগা থেকে গোড়া পর্যন্ত খুব ভালোভাবে ম্যাসেজ করে নিন। এখন আপনার চুলটি শাওয়ার ক্যাপ এর মাধ্যমে 30 থেকে 40 মিনিট পর্যন্ত ঢেকে রাখতে হবে। এখন আপনার চুলটি ভালো একটি উন্নত মানের শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে। এই পদ্ধতিটি আপনাকে সপ্তাহে 1 থেকে 2 বার পর্যন্ত করতে হবে।

ডিমের মধ্যে রয়েছে প্রোটিন এবং সালফার যেটা কিনা আপনার চুলের গোড়া মজবুত করতে সাহায্য করবে এবং বলতে গেলে আপনার চুল ভিতর থেকে মজবুত করে ফেলবে এবং আপনার পাতলা চুল ঘন করার পাশাপাশি চুল আকর্ষণ করতে সাহায্য করবে। এবং আপনি ডিমের সাথে যে অলিভ অয়েল টি যুক্ত করেছে সেখানেও অনেক ধরনের স্বাস্থ্যকর দিক রয়েছে।

৩. আমলকী

আপনার পাতলা চুল যদি আমলকির মাধ্যমে ঘনত্ব করতে চান সে ক্ষেত্রে 1 টেবিল-চামচ আমলকীর গুঁড়া নিয়ে নিন সেই সাথে যুক্ত করুন লেবুর রস। এবং সাথে যদি আপনি টকদই মিশিয়ে নেন তাহলে একটু বেনিফিশিয়াল হবে। আপনার চুল ড্রাই এবং ডেমেজ হয়ে থাকে তাহলে সাথে মধুও এড করতে পারেন। এগুলো খুব ভালোভাবে মিশ্রিত করার পর আপনার চুলের মধ্যে 30 থেকে 40 মিনিট পর্যন্ত লাগিয়ে অপেক্ষা করুন। এবং সর্বশেষ আপনাকে চুলগুলো শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে। এই পদ্ধতিটি আপনি শপ্তাহে 1 থেকে 2 বার পর্যন্ত করতে পারেন।

See also  আমার লোকেশন কোথায় | হ্যালো গুগল আমি এখন কোথায় আছি | গুগল ম্যাপে মোবাইল লোকেশন বের

চুলের মধ্যে এমন এক শক্তি রয়েছে যেটা কিনা নারিশমেন প্রোভাইড করে তাকে। কেননা আমলকিতে রয়েছে অনেক বেশি এন্টি-এক্সিডেন্ট এবং ভিটামিন সি যেগুলো কিনা আপনার চুলের স্বাস্থ্য সুন্দর করে এবং চুলের গোড়ায় কোলাজেন এর মাত্রা বৃদ্ধি করে। এবং লেবুর মধ্যে রয়েছে চুলের খুশকি দূর করার শক্তি এবং লেবু যদি আমলকীর গুঁড়ার এর সাথে যুক্ত হয়ে যায় তাহলে সেগুলো চুলের গোড়া মজবুত করতে অনেক সহায়ক হবে।

আরো পড়ুনঃ পেটে ব্যাথা কমানোর উপায়।

৪. মেথি

আপনি আপনার পাতলা চুল ঘন করতে পারেন মেথির ব্যবহার করে। তার জন্য মেথি গুলো আপনাকে দুই টেবিল-চামচ নিয়ে রাতভর ভিজিয়ে রাখতে হবে। এবং সকালে উঠার পর সেই মেথি থেকে মেথি দানা গুলো বের করার পর হাফ কাপ পরিষ্কার পানি দিয়ে ভালোভাবে ব্লেন্ডার মেশিন ব্লেন্ড করতে হবে। এবং আপনার তৈরীকৃত এই পেস্টটি চুলের মধ্যে 30 মিনিট ধরে রাখতে হবে।

এবং সর্বশেষ ভালো মানের একটি শ্যাম্পু এবং কন্ডিশনার দিয়ে চুল গুলো ধুয়ে ফেলতে হবে। এই পদ্ধতিটি আপনি সপ্তাহে একবার করতে পারেন। মেথিতে এমন এক শক্তি রয়েছে যেগুলো কিনা আপনার চুলের স্বাস্থ্য বজায় রেখে চুল বৃদ্ধি করতে সহায়তা করবে। সাধারণত এটি চুলের স্ক্যাল্প এর প্রদাহ দূর করে এবং খুশকি দূর করে এবং চুল বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে।

আরো পড়ুনঃ অ্যালোভেরা দিয়ে মুখের কালো দাগ দূর করার উপায়।

৫. মেহেদী

আপনার পাতলা চুল ঘন করতে চান এবং আপনি যদি মেয়ে হয়ে থাকেন সেক্ষেত্রে মেহেদী ব্যবহার করতে পারেন। তার জন্য পরিমানমতো মেহেদী নেওয়ার পর সেগুলো বেটে নিতে হবে। আপনি যদি ইচ্ছে করেন সেক্ষেত্রে সেই মেহেদী পেস্ট এর সাথে নারিকেল তেল কিংবা অলিভ অয়েল যোগ করতে পারেন। এবং আপনার তৈরীকৃত এই উপাদানগুলো আপনার চুলের মধ্যে দেওয়ার পর শাওয়ার ক্যাপ দিয়ে 30 থেকে 35 মিনিট পর্যন্ত ঢেকে রাখতে হবে। এক্ষেত্রে আপনি ফ্যাক্টরি প্রতি মাসে 1 থেকে 2 বার ব্যবহার করতে পারেন।

মেহেদী হচ্ছে চুলের জন্য একটি আদর্শ খাদ্য। মেহেদিতে এমন এক শক্তি রয়েছে যেটা কিনা আপনার চুলকে মজবুত করতে সাহায্য করবে এবং নতুন চুল গজাতে সাহায্য করবে। তাছাড়া আপনার মেহেদী বাটতে যদি একটু সমস্যা হয় সে ক্ষেত্রে আপনি বাজার থেকে হেনা প্যাক কিনে নিতে পারেন, যেগুলো কিনা মেহেদির মত কাজ করবে।

আরো পড়ুনঃ জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে যাচাই করার পদ্ধতি।