Advertise

কিভাবে জন্ম নিবন্ধন অনলাইন করা যায়।জন্ম নিবন্ধন অনলাইন করার নিয়ম।

জন্ম নিবন্ধন অনলাইন করার নিয়ম। Rules for registering birth online.

আজকের এই আর্টিকেলে আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করতে যাচ্ছি কিভাবে আপনার হাতে থাকা বা প্রিন্ট করা যেকোনো জন্ম নিবন্ধন কে আপনি অনলাইন করবেন। কিভাবে জন্ম নিবন্ধন অনলাইন করা যায় এই বিষয় নিয়ে আপনি যদি বিস্তারিত জানতে চান তাহলে আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়তে পারেন। কেননা আজকের এই আর্টিকেলে আমি আপনাদের সাথে সম্পূর্ণরূপে শেয়ার করার চেষ্টা করবো কিভাবে জন্ম নিবন্ধন অনলাইন করা যায় সে সম্পর্কে বিস্তারিত। তাই আর বেশি কথা না বলে শুরু করা যাক মূল বিষয়ে।

আরো পড়ুনঃ রবি নাম্বার কিভাবে দেখে।

আমাদের অনেক সময় আমাদের জন্ম নিবন্ধনটি হাতে পাই কিন্তু সেটা যখন অনলাইনে সার্চ দিয়ে থাকি তখন খুজে পাইনা তথা আমাদের জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে থাকে না। তো আপনি যদি আপনার জন্ম নিবন্ধন টি অনলাইনে করতে চান তাহলে কি করতে হবে সেই বিষয়ে আলোচনা করার চেষ্টা করছি আজকের এই আর্টিকেলে। আজকের এই গুরুত্বপূর্ণ আর্টিকেলটি আপনি পুরোটা পড়লে অবশ্যই জানতে পারবেন কিভাবে জন্ম নিবন্ধন অনলাইন করা যায় সেই বিষয়ে।

এখন অনলাইন সেবা থাকার কারণে আর আগের জন্ম নিবন্ধন এবং হাতের লেখা জন্ম নিবন্ধন টি আর কোন কাজে আসছে না। কেননা আপনার কোন একটা জন্ম নিবন্ধন কোন কাজে ব্যবহার করার আগেই সেটা অবশ্যই অনলাইনে আছে কিনা সেটা চেক করে। অর্থাৎ আপনার জন্ম নিবন্ধন ফি যদি আপনি কোন কাজে লাগাতে চান তাহলে ডিজিটাল হতে হবে বা অনলাইনে থাকতে হবে।

জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে না থাকলে করণীয় কি।

আপনি যদি আপনার জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে খুঁজে না পান তাহলে অবশ্যই আপনাকে কি কারনে আপনার জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে পাওয়া যাচ্ছে না সেটা খুঁজে নিতে হবে। আর আপনি যদি আপনার জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে ডাটাবেজে কোথাও না পান সে ক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই নতুন একটি জন্ম নিবন্ধন নিবন্ধিত করতে হবে। এইজন্য আপনি অবশ্যই অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন। অর্থাৎ আপনার কে অবশ্যই নতুন একটি জন্ম নিবন্ধনের জন্য অনলাইনে আবেদন করতে হবে এই ছাড়া আর কোন উপায় নেই।

কি কারনে আপনার জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে পাওয়া যাচ্ছে না।

বর্তমান সময়ের আগে আমাদের জন্ম নিবন্ধন অনলাইন করার জন্য আগেই সর্বপ্রথম আমাদের ইউনিয়ন পরিষদ কিংবা পৌরসভাতে হাতে লিখে নেয়া হতো তাদের একটা নির্দিষ্ট বইতে। তারপর তারা ম্যানুয়ালি ভাবে জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে তোলার চেষ্টা করত।

যেহেতু তখনকার সময়ে ম্যানুয়ালি জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে করা হতো তাই ভুলবশত আপনার জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে না তুলতেও পারে এটা তো স্বাভাবিক। এমনভাবে হয়তো আপনার জন্ম নিবন্ধন টি ভুলে না ওঠার কারণেই আপনার জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।

অনলাইনে না থাকার আরেকটি প্রধান সমস্যা হতে পারে সেটা হচ্ছে আপনার কাছে যে জন্ম নিবন্ধনের নাম্বারটি রয়েছে সেটা হয়তো ভুল। আপনি ইউনিয়ন পরিষদ কিংবা পৌরসভাতে গিয়ে ঠিক করে নিতে পারেন।

আরো পড়ুনঃ রমজান কত তারিখে শুরু হবে 2022 

কিভাবে জন্ম নিবন্ধন অনলাইন করা যায়। হাতে লেখা জন্ম নিবন্ধন অনলাইন করার নিয়ম।

আপনার হাতের রেখা জন্ম নিবন্ধন ফি যদি অনলাইন ডাটাবেজে পাওয়া না যায় তখন আপনা কে অবশ্যই নিশ্চিত হয়ে নিতে হবে যে আপনার জন্ম নিবন্ধনের নাম্বারটি 17 ডিজিটের কিনা। আপনার জন্ম নিবন্ধনের যে 17 ডিজিটের নাম্বারটি রয়েছে সে নাম্বার এর প্রথম চারটি অক্ষর আপনার জন্ম সাল কিনা।

এসব তথ্য ঠিক থাকার পরেও যদি আপনার জন্ম নিবন্ধন ফি অনলাইন ডাটাবেজে পাওয়া না যায় তাহলে আপনাকে অবশ্যই নতুন একটি জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে আবেদন করতে হবে বা নতুন একটি জন্ম নিবন্ধন তৈরি করতে হবে। পুরাতন বা হাতে রেখে জন্ম নিবন্ধন এর নাম্বার সাধারণত 16 ডিজিটের হয়ে থাকে আর আপনি সেটা পরিবর্তন করে 17 ডিজিট করতে পারবেন। আপনার জন্ম নিবন্ধনের 16 ডিজিটের নাম্বারটি 17 ডিজিটের করার জন্য এখানে চাপ দিন। 

আপনার জন্ম যদি 2001 সাল বা তারপরে হয়ে থাকে তাহলে আপনাকে জন্ম নিবন্ধন অনলাইন করার জন্য অবশ্যই আপনার পিতা-মাতার জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে থাকতে হবে।

তাই আপনাকে অবশ্যই আপনার জন্ম নিবন্ধন টি অনলাইনে আবেদন করার আগেই জেনে নিতে হবে যে আপনার মা বাবার জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে আছে কিনা। যদি না থাকে সে ক্ষেত্রে আগেই আপনার মা বাবার জন্ম নিবন্ধন গুলো অনলাইনে করে নিন। তারপর আপনার জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে করার জন্য আবেদন করতে পারেন। আপনার বা আপনার মা বাবার জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে আছে কিনা চেক করতে এখানে চাপ দিন।

আর আপনার জন্ম যদি 2000 সাল বা তার আগে হয়ে থাকে তাহলে আপনার মা বাবার জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে থাকার প্রয়োজন নেই। সে ক্ষেত্রে আপনি নিশ্চিন্তে আপনার জন্ম নিবন্ধন অনলাইন করার জন্য আবেদন করতে পারেন। সে ক্ষেত্রে আপনারা জন্ম নিবন্ধন আবেদন করার সময় আপনার মা বাবার নাম লিখে দিবেন।

আশা করি আজকের এই আর্টিকেলটি আপনার অনেক উপকারে এসেছে তাই আপনি যদি এই রকম আরো নিত্যনতুন বিষয় সম্পর্কে জানতে চান তাহলে আমাদের সঙ্গে থাকতে পারেন এবং আপনার বন্ধু এবং পরিবারের মাঝে শেয়ার করে দিন যাতে তারাও এটা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারে। ইনশাআল্লাহ আর একটি লেখা নিয়ে হাজির হব।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url